টাইমলাইনভারত

ইজরায়েলকে ‘জঙ্গিদের দেশ” বলায় সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল ট্রোলড স্বরা ভাস্কর

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ এই মুহূর্তে কোভিডের সুনামিতে জর্জরিত ভারত বর্ষ। প্রতিদিনই আক্রান্ত হচ্ছেন লক্ষ লক্ষ মানুষ। মৃত্যুর সংখ্যাও রীতিমতো উদ্বেগ বাড়িয়েছে দিল্লির। পরিস্থিতি এতটাই জটিল যে ভারতের সাহায্যার্থে এগিয়ে এসেছে বন্ধু দেশগুলিও। এদের মধ্যে অন্যতম ইজরায়েল। ভারতের পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে তারা। করোনার কারণে এই মুহূর্তে ভারতে আসা নিষিদ্ধ হলেও সংক্রমণ থেকে ভারতকে বাঁচাতে বিশেষজ্ঞ দল পাঠাচ্ছে ইজরায়েল সরকার। শুধু তাই নয় তাদের দেশ থেকে আসছে অত্যাধুনিক করোনা পরীক্ষার মেশিনও। এমতাবস্থায় ইজরায়েলকে জঙ্গি ও বৈষম্যবাদী দেশ বলে কটাক্ষ করতে গিয়ে ফের একবার বিতর্কে জড়ালেন হিন্দি ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম বিখ্যাত অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর।

বিতর্ক অবশ্য স্বরার জন্য কোন নতুন কথা নয়। এর আগেও একাধিকবার কেন্দ্র সরকারের নানা পদক্ষেপ নিয়ে সমালোচনা করতে গিয়ে বিতর্কে জড়িয়ে ছিলেন তিনি। কৃষক আন্দোলনের সময়ও কৃষকদের সমর্থনে সোচ্চার হয়েছিলেন স্বরা। এবার ইজরায়েলের সঙ্গে প্যালেস্টাইনের যুদ্ধকে কেন্দ্র করে টুইটারে নিজের বক্তব্য প্রকাশ করতে গিয়ে ফের একবার নেটিজেনদের বিক্ষোভের মুখে পড়লেন তিনি। নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এই বিষয়ে পরপর বেশ কয়েকটি টুইট করেন তিনি। প্রথম টুইটেই তিনি বলেন, “ইজরায়েল একটি বৈষম্যবাদী দেশ। ইজরায়েল একটি জঙ্গি দেশ।” সাথে সাথে  #AlAqsa #FreePalestine হ্যাশট্যাগও ব্যবহার করেন তিনি। শুধু এই টুইটেই নয়, ইজরায়েল এবং প্যালেস্টাইন বিষয়ে পরপর আরও বেশ কয়েকটি টুইট করতে দেখা যায় তাকে।

সম্প্রতি গত সোমবার প্যালেস্টানি জঙ্গিদের সঙ্গে ফের সংঘর্ষ শুরু হয়েছে ইজরায়েলের। সোমবার বর্তমানে ইজরায়েলের অধিকারে থাকা গাজা ভূখণ্ড ও জেরুজালেমের একাংশে হামলা চালিয়েছে হামাস। যার প্রত্যুত্তর দিয়েছে ইসরায়েলও। এই সংঘর্ষের ঘটনার উল্লেখ করে স্বরা এদিন লেখেন, “প্যালেস্তানি এবং প্যালেস্টাইনের জন্য ন্যায় বিচার চাওয়ার পিছনে কোন ইসলামিক কারণ নেই। সবার আগে এই লড়াই সাম্রাজ্যবাদ-বিরোধী, ঔপনিবেশিকতা-বিরোধী এবং বৈষম্য-বিরোধী । আর সেই কারণে আমাদের প্রত্যেকের এই বিষয়ে সচেতন হওয়া উচিত এমনকি প্রত্যেক অ-মুসলিমদেরও। ’’

তবে স্বরা ভাস্কর বারবার সাম্রাজ্যবাদবিরোধী, ঔপনিবেশিকতা বিরোধী প্রসঙ্গ তুলে আনলেও তার এই বিরোধকে মোটেই ভাল চোখে দেখেননি সোশ্যাল মিডিয়ার নেটিজেনরা। অনেকের মতে তার এই পোস্ট কেবলমাত্র বিতর্ক তৈরি করার জন্যই। তিনি বারবার বিতর্কে ঝাঁপিয়ে পড়তে ভালোবাসেন। এই মুহূর্তে বন্ধুর মত সাহায্য করতে এগিয়ে এসেছে ইজরায়েল। তাই সর্বপ্রথম মাথায় রাখা উচিত নিজের দেশের ভালোর কথা। অনেকে এও মন্তব্য করেন যে, আপনি কেন এখনো বারবার প্যালেস্টাইনকে সাপোর্ট করে চলেছেন? আপনি কি জানেন না কাশ্মীর ইস্যুতে ওরা পাকিস্তানকে সমর্থন করে?

প্যালেস্টাইন ইজরায়েলের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ইতিমধ্যেই মৃত্যু হয়েছে দুই দেশের বহু মানুষের। রক্ত ক্ষয়ী যুদ্ধের বিরুদ্ধে যেকোনো শুভবুদ্ধি সম্পন্ন মানুষের উঠে দাঁড়াবেন এ নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। তবে সোশ্যাল মিডিয়ার নেটিজেনদের অনেকেই মনে করেন, আগে ভাবা উচিত নিজের দেশের কথা। দেশের এই জটিল পরিস্থিতিতে বন্ধু দেশকে অসমর্থন মোটেই কাম্য নয়। একথা ঠিক যে মোদি সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই ইজরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক যথেষ্ট ভাল হয়েছে ভারতের। ইজরায়েল থেকেই বর্তমানে অত্যাধুনিক অস্ত্রশস্ত্র আমদানি করে ভারত। আর সেই কারণে আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক সম্পর্ক এই মুহূর্তে আরো বেশি সুদৃঢ় করতে চাইবে তারা।

Related Articles

Back to top button