fbpx
টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

রোজার মধ্যে আমাদের চরম হেনস্থা করছে মমতা সরকার! অভিযোগ মরকজ ফেরত জামাতিদের

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ পশ্চিমবঙ্গের (West Bengal) মমতা ব্যানার্জীর (Mamata Banerjee) সরকারের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ তাবলীগ ফেরত তীর্থযাত্রীদের। গত শনিবার কলকাতার (Kolkata) নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামের সামনে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দেন জামাতিরা। অভিযোগ অনুযায়ী, রাজ্য সরকার তাদের সাথে অসহযোগিতা করছে।

মার্চ মাসে দিল্লীর মরকজে অনুষ্ঠিত হয়েছিল তাবলীগ জামাতের অনুষ্ঠান। আর সেখানে দেশ, বিদেশ থেকে হাজার হাজার তীর্থযাত্রী অংশগ্রহণ করেছিলেন। বাদ যায়নি পশ্চিমবঙ্গও। এরাজ্য থেকেও অনেক ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা মরকজে অংশ নিয়েছিলেন। এরপর দেশজুড়ে লকডাউন চালু হওয়ার কারণে ওনারা সেখানেই আটকে যান। এরপর দিল্লীর সরকার ওনাদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠায়। কোয়ারেন্টাইন পিরিয়ড শেষ হলে তাদের সুস্থতার সার্টিফিকেটঅ দেয় দিল্লী সরকার।

নিজেদের সুস্থতার প্রমাণপত্র দেখাচ্ছেন নিজামুদ্দিন ফেরত তবলিঘি জামাতের সদস্যরা।

দেড় মাস দেশের রাজধানী দিল্লীতে আটকে থাকার পর শুক্রবার বাসে করে নিজ রাজ্যে পা দেন জামাতের সদস্যরা। এরপর তাঁরা অভিযোগ করেন যে, রাজ্যের সীমায় পৌঁছাতেই তাদের হেনস্থা করা শুরু হয়। গোটারাত তাদের সীমান্তে দাঁড় করিয়ে রাখা হয়, এরপর সকাল হলে তাদের কলকাতা পাঠানো হয়।

কলকাতার নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে চলছে অন্য রাজ্য থেকে আসা শ্রমিক এবং পর্যটকদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা। আর সেই স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য রবিবার দুপুরে প্রখর রোদের মধ্যে দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয় তাদের। এরপরই তাঁরা মমতা সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়।

এক জামাতি বলেন, ‘আমরা রোজার মধ্যে প্রায় ৬০ ঘণ্টা বাসে করে রাজ্যে ফিরেছি। এরপর আমদের সীমান্তে আটকে রাখা হয়। আমাদের বলা হয় যে পরীক্ষা হবে। সেখানে রাতভর দাঁড় করিয়ে রেখে আমাদের কলকাতায় নিয়ে আসা হয়। আর এবার কড়া রোদের মধ্যে আমাদের দাঁড় করিয়ে এভাবে হয়রান করছে সরকার।

আপনাদের জানিয়ে দিই, শুধু জামাতিরাই নয় ভিন রাজ্য থেকে এরাজ্যে আসা শ্রমিকরাও সরকারের বিরুদ্ধে হেনস্থার অভিযোগ করেছে। এমনকি রাজ্যের সীমান্তে পুলিশরা তাদের থেকে জোর করে টাকাও নিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে।

Back to top button
Close
Close