fbpx
আন্তর্জাতিকটাইমলাইনভারত

ভারতকে ধন্যবাদ জানাল মালদ্বীপ, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা, করোনা ভাইরাসের সাথে লড়াইতে ভারত দিচ্ছে নেতৃত্ব

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ করোনাভাইরাসের (corona virus) প্রভাব বিশ্বের প্রায় ১১০ টিরও বেশি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এই মহামারিতে এখনও অবধি সমগ্র বিশ্বে মৃতের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৫ হাজারের বেশি এবং আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় দেড় লক্ষ। এই পরিস্থিতিতে ভারত (India) সরকার আক্রান্ত দেশগুলো থেকে এই দেশের নাগরিকদের বিমান মারফত ফিরিরে আনছেন। শুধুমাত্র ভারতীয় নাগরিক নয়, তাঁর সাথে বিদেশের নাগরিকদের ফিরিয়ে আনছেন।

সম্প্রতি ভারত সরকার চীনের (Chaina) উহান শহর থেকে ২৩ জন বাংলাদেশি (Bangladesh) পড়ুয়াকে ফিরিয়ে নিয়ে আসেন। এই ছাত্রদের তাঁদের দেশে ফেরানোর ব্যবস্থা করে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার (Sheikh Hasina) প্রশংসাপ্রাপ্ত হন ভারত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। বাংলাদেশের নাগরিকদের ফিরিয়ে আনার জন্য মোদীজিকে অনেক ধন্যবাদ জানান তিনি। শেখ হাসিনা বলেন, ‘এখনও অবধি বাংলাদেশে ২ জনের শরীরে এই রোগের লক্ষণ পাওয়া গিয়েছে। তবে এই দুজনই আক্রান্ত দেশগুলো থেকে এসেছিলেন। কিন্তু তাঁদের থেকে এখনও পর্যন্ত অন্য কারোর দেহে এই রোগ বিস্তার লাভ করতে পারেনি। আর যাতে এই রোগ ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেদিকেও লক্ষ্য রাখা হচ্ছে’।

সম্প্রতি মালদ্বীপেও (Maldives) ১৪ জনের একটি টিম পাঠায় ভারত সরকার। এই টিম মালদ্বীপে গিয়ে সেখানকার মানুষের চিকিৎসা কররা জন্য। মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহামেদ সোলির অনুরোধে এই টিম সেখানে পাঠানো হয়েছিল। চীনে আটকে থাকা মালদ্বীপের নাগরিকদেরে ফিরিয়ে আনায় ফের প্রশংসিত হন মোদী সরকার।

ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, বাংলাদেশ, নেপাল, ভূটান, মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা- দক্ষিণ এশিয়ার এই আটটি দেশ নিয়ে গঠিত SAARC কমিটিতেও ভারত অনেক প্রশংসা লাভ করে। করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা করার জন্য নিজের দেশের পাশাপাশি অন্য দেশের সাহায্যেও এগিয়ে আসে নরেন্দ্র মোদী। সার্কগোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলি সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে তিনি জরুরিকালিন অবস্থার জন্য SARRC দেশগুলোকে একটি ফান্ড তৈরির কথা বলেন, যা প্রয়োজনে বিভিন্ন দেশ কাজে লাগাতে পারবে। এই ফান্ডে ভারতের পক্ষ থেকে ১কোটি মার্কিন ডলার দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

এই পরিস্থিতিতে ভারত থেকে বৈদেশিক যাতায়াত অনেক আগেই বন্ধ রাখা হয়েছে। এবং বিভিন্ন চেকপোস্টও বন্ধ রাখা হয়েছে। এই মারণরোগ যাতে দ্রুততার সাথে ছড়িয়ে পড়তে না পারে, তাঁর জন্য বিভিন্ন স্কুল কলেজ বন্ধ রাখা হয়েছে।এমনকি দিল্লীতে ১৪৪ ধারাও জারী করা হয়েছে। করোনা (COVID-19) পরিস্থিতি মোকাবিলা করার জন্য ভারতের এইসকল পদক্ষেপে শ্রীলঙ্কার (Sri Lanka) প্রধানমন্ত্রী ভারতের প্রধানমন্ত্রীর অনেক প্রশংসাও করেছেন।

Back to top button
Close