টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

অশান্ত খেজুরি ‌ও পটাশপুর! শুভেন্দু ইস্তফা দিতেই তৃণমূল কার্যালয় ভাঙচুর করে দখলের অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari) মন্ত্রীত্ব ছাড়তে না ছাড়তেই, তৃণমূল (All India Trinamool Congress) কার্যালয় ভাঙচুর এবং বেদখলের অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে। অভিযোগ উঠেছে, প্রাক্তন পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী মন্ত্রীত্ব ছাড়তেই পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরি ‌ও পটাশপুর এলাকায় বাজি ফাটিয়ে বাইক র‍্যালিতে বের হয় বিজেপি। তারপরই দলীয় কার্যালয় দখল করে নেয়।

তৃণমূলের অভিযোগ
তৃণমূলের পক্ষ থেকে অভিযোগ উঠেছে, শনিবার সকালে খেজুরিতে শাসক দলের পার্টি অফিস থেকে তৃণমূলের পতাকা ছিঁড়ে ফেলে দিয়ে সেখানে বিজেপির পতাকা লাগিয়ে দেয় গেরুয়া বাহিনী। সেইসঙ্গে খেজুরির বীরবন্দরের একাধিক জায়গার দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুর চালিয়ে পাটনা, কুণ্ঠিবাড়ি, আলিচকে তৃণমূলের কার্যালয় বেদখল করে নিয়েছে বিজেপি। পাশাপাশি পটাশপুরের নিরঞ্জন মার্কেট এলাকার তৃণমূলের পার্টি অফিসে ‘‌বিশ্রামাগার’‌ সাইনবোর্ড টাঙিয়ে দেওয়ারও অভিযোগ উঠেছে বিজেপি সদস্যদের নামে।

পটাশপুরের ঘটনায় তৃণমূল নেতা প্রভুরাম দাস অভিযোগ করেছেন, ‘পার্টি অফিস এখনও অবধি বেদখল হয়ে যায়নি। তবে শুভেন্দু অধিকারী মন্ত্রীসভা থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর শুনেছি পার্টি অফিসে ‘‌বিশ্রামাগার’‌ সাইনবোর্ড টাঙিয়ে দিয়েছে কয়েকজন সমাজবিরোধী’।

পুলিশে খবর দেয় সবুজ শিবিরের সদস্যরা
খেজুরির ঘটনায় শনিবার সকালে মিঞা রোড সহ বেশ কিছু জায়গায় বিজেপি কর্মীদের গ্রেফতারের দাবীতে পথ অবরোধ করে তৃণমূল সদস্যরা। খেজুরির তৃণমূল বিধায়ক রঞ্জিত মণ্ডল অভিযোগ করেছেন, ‘খেজুরির বীরবন্দর এলাকার বেশ কয়েকটি তৃণমূলের পার্টি বোমাবাজি করে অফিস ভাঙচুর করে গেরুয়া শিবিরের লোকজন। খেজুরির মানুষ এই অত্যাচার কখনই মেনে নেবে না। পুলিশে খবর দেওয়া হয়েছে, পুলিশ ব্যবস্থা নেবে’।

পাল্টা অভিযোগ করেছে বিজেপিও
খেজুরিকে অশান্ত করার চেষ্টা করছে তৃণমূল, এমনটা বিজেপির তরফ থেকে পাল্টা অভিযোগ করা হয়েছে। তৃণমূল বিধায়ক রঞ্জিত মণ্ডলের অভিযোগকে অস্বীকার করে বিজেপি নেতা তাপস দলুই বলেছেন, ‘বিজেপি কখনই দখলদারী রাজনীতি করে না। যারা মিথ্যা অভিযোগ করছে, তারাই এই ধরণের কাজ করে’।

Back to top button