আন্তর্জাতিকটাইমলাইন

রক্তের টান, করোনা আক্রান্ত মায়ের শেষ নিঃশ্বাস অবধি হাসপাতালের জানালায় বসে রইল ছেলে

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ করোনা (corona virus) নিয়ে উত্তাল দেশ। লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলেছে আক্রান্তের সংখ্যা, পাশাপাশি হানা দিয়েছে মৃতের সংখ্যাও। কোনভাবেই এই সংক্রমণ থেকে বাঁচা যাচ্ছে না। এই সংক্রমণের জেরে পরিবার, পরিজন, আত্মীয়, বন্ধুর সঙ্গে বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছে এই মারণ ব্যাধি।

দেখা করার উপায় তো নেই‌–ই, এমনকি অসুস্থ, মৃত পরিজনকেও দেখার উপায় নেই কারওর। অদেখাতেই বিদায় জানাতে হচ্ছে সবাইকে। কিন্তু তবু, কোথাও যেন রক্তের সম্পর্ক আলাদা হয়ে যায় সব কিছু থেকে। টান যেন পিছু ছাড়তে চায় না। এমনই এক ঘটনার সাক্ষী থাকল গোটা বিশ্ব। ঘটনাটি ঘটেছে প্যালেস্তাইনে (Palestine)।

কষ্টদায়ক ঘটনাটির একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল রয়েছে। যা গোটা বিশ্ববাসীর হৃদয়ের হাড় পর্যন্ত কাঁপিয়ে দিয়েছে।

ছবিটির সত্যতা যাচাই করতে গিয়ে জানা গিয়েছে, হাসপাতালে কয়েকতলা ওপরে কাচের দেওয়ালের পাশে ভিতরের দিকে তাকিয়ে বসে আছেন এক ব্যক্তি। বয়স বেশি নয়। কিন্তু কেন এমন হাসপাতালের জানলার পাশে বসে আছেন তিনি?‌ সেই বিষয়ের সন্ধান করতেই বেরিয়ে এসেছে অবাক করা তথ্য।

ওই ব্যাক্তির নাম জিহাদ আল সুয়াইতি। বয়স ৩০। তাঁর মা করোনা আক্রান্ত হয়ে এই হাসপাতালেই ভর্তি রয়েছেন। সরকারি হাসপাতালের ইন্টেনসিভ কেয়ার ইউনিটে ভর্তি মা–কে দেখতে যাওয়ার অনুমতি স্বাভাবিকভাবেই পায়নি ছেলে।

তাই সে অপেক্ষা করেছে জানলার পাশে বসে। শেষ সময়ে মায়ের কাছ থেকে সরে যেতে চায়নি। জানলা দিয়েই সে দেখেছে, মা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে। যতদিন মা হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন, ততদিন রোজ রাতে ওই জানলার ধারে বসে থাকতেন এই যুবক। মহম্মদ সাফা (‌Mohamad Safa)‌ নামে একজন এই ছবিটি শেয়ার করে লিখেছেন এই বিষয়টি।

করোনা আক্রান্ত মায়ের আগে থেকেই ছিল লিউকোমিয়া। পাঁচদিন তাঁকে ভর্তি থাকতে হয়েছিল হাসপাতালে। সেই যুবক সন্তান পরে জানিয়েছেন, আমার অসহায় লাগত। তাই হাসপাতালের জানলার ধারে বসে থাকতাম। মাকে দেখতে। মা আমার কাছে সব কিছু।

Back to top button