টাইমলাইনভারত

মন্ত্রীর নাতনি পেল হেলিকপ্টারের সুবিধা, সৈনিকের মেয়ে পেল না সমান্য চিকিৎসাও, প্রশ্নের মুখে সরকার

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ মন্ত্রীর নাতনির জন্য যদি হেলিকপ্টার ব্যবহার কর হয়, তাহলে সাধারণ মানুষের জন্য তাঁর ব্যতিক্রম কেন? সম্প্রতি হিমাচল প্রদেশের (Himachal Pradesh) এমনই এক ঘটনায় চোখে জল চলে এল সকলেরই। সমাজের উচ্চ শ্রেণীদের জন্য একরকম নিয়ম, আবার নিম্ন শ্রেণীর জন্য তাঁর ব্যতিক্রম। যুগ বদলালেও মানুষের এই ধারণার কিন্তু বিশেষ একটা বদল লক্ষ্য করা যাচ্ছে না।

সম্প্রতি কংগ্রেস প্রাক্তন সৈনিক বিপিন কুমার তাঁর সন্তানের চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করে একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে। যার জেরেই স্যোশাল মিডিয়ার নানান প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হচ্ছে সরকারকে।

চিকিৎসা করতে আপত্তি জানায় চিকিৎসকরা
হামিরপুরের কাক্কারের কংগ্রেস প্রাক্তন সৈনিক বিপিন কুমারের বছর পাঁচেকের মেয়ে আরুশি পায়ে চোট পায়। পায়ে গুরুতর আঘাত লাগায় তিনি প্রথমে তাঁর মেয়েকে হামিরপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু সেখান থেকে সুজনপুর হাসপাতালে তাঁকে রেফার করা হয়। হাসপাতালের স্ট্রেচারে দীর্ঘ ৫ ঘণ্টা ঘরে কষ্ট পাওয়ার পরও যখন তাঁর মেয়েকে চিকিৎসকরা দেখতে আপত্তি জানায়, তখন তিনি একটি ভিডিও করেন হাসপালাতের চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে।

মন্ত্রীর নাতনি পেল হেলিকপ্টারের সুবিধা
এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে প্রাক্তন সৈনিক বিপন কুমার বলছেন, আজকে আমার মেয়েটির চিকিৎসায় রাজী হল না চিকিৎসকরা। কিন্তু কিছুদিন আগেই হিমাচল প্রদেশের জলবিদ্যুৎমন্ত্রী মহেন্দ্র সিং ঠাকুরের (Mahender Singh Thakur) নাতনি অসুস্থ হওয়ায় তাঁকে সরকারের হেলিকপ্টারে করে শিমলা থেকে মান্ডি নেওয়া হয়েছিল। একজন মন্ত্রীর নাতনি বলে সে বিশেষ সুবিধা পেল, আর সাধারণ মানুষ সামান্য সুবিধা থেকেই বঞ্চিত হচ্ছে।

বঞ্চিত হবে না সাধারণ মানুষ
এই ঘটনার পরবর্তীতে প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি সুখবিন্দর সিং সুখু বলেছেন, সকলের চিকিৎসার জন্য একই নিয়ম থাকতে হবে। যদি কোন মন্ত্রীর নাতনি চিকিৎসার প্রয়োজনে হেলিকপ্টারের সুবিধা পায়, তাহলে সাধারণ মানষকেও সেই সুবিধা থেকে বঞ্চিত করা যাবে না।

Back to top button