টাইমলাইনভারত

অযোধ্যায় বাবরের নামে হবে না মসজিদ, জানিয়ে দিল ওয়াকফ বোর্ড

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ অযোধ্যায় (Ayodhya) রাম মন্দিরের ভূমি পূজার পর থেকে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে (Yogi Adityanath) নিয়ে শুরু হয়েছে আরও একটি বিতর্ক। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে মন্দির নির্মানের কাজ তো এগোচ্ছে, কিন্তু সেখানে একটি মসজিদ নির্মানেরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু সেই মসজিদের শিলান্যাসে মুখ্যমন্ত্রী যোগী যাবেন কিনা, তা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে।

‘আমি যাব না’
মসজিদের শিলান্যাসের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হবেন কিনা সেবিষয়ে প্রশ্ন করা যোগী জানান, ‘আমি যাবও না। আর ওঁরা আমাকে ডাকবেও না। তবে একজন মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে যা করণীয় তা আমি করে যাব। তবে যদি একজন যোগী হিসাবে বলব, আমি হিন্দু, তাই মসজিদের শিলান্যাসে আমি যাব না’।

শুরু হয়েছে বিতর্ক
উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্যকে ঘিরে তৈরি হয়েছে নানান বিতর্ক। তবে তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, বিন্নিপুরে মসজিদের জন্য, হাসপাতাল, কিচেন, লাইব্রেরি নির্মানের বিষয়ে সবরকম সাহায্য করলেও, মসজিদের শিলান্যাসে তিনি যাবেন না।

আমন্ত্রণ জানানো হবে যোগীকে
মসজিদ গঠনের ইন্দো-ইসলামিক কালচারাল ফাউন্ডেশন ট্রাস্টের সদস্য আথার হুসেন জানিয়েছেন, ‘বিন্নিপুরের ওই জমিতে মসজিদের পাশাপাশি, সাধারণ মানুষের স্বার্থে হাসপাতাল, কমিউনিটি কিচেন এবং একটি লাইব্রেরীও তৈরি করা হবে। এই অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে অবশ্যই আমাদের তরফ থেকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। মসজিদ নির্মানে কোন শিলান্যাস করার নিয়ম নেই ইসলামিক ধর্মে। কিন্তু যেহেতু এখানে হাসপাতাল নির্মান করা হবে, তাই শিলান্যাসের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে’।

রাখা হবে না বাবরি নাম!
পাশাপাশি এই মসজিদ নির্মানের বিষয়ে সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ড স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দিয়েছে,’ অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ৫ একর জমিতে হাসপাতাল, কমিউনিটি কিচেন এবং একটি লাইব্রেরীর সাথে যে মসজিদ নির্মিত হলেও, সেই মসজিদের নাম বাবরি মসজিদ (Babri Masjid) রাখা হবে না’।

Back to top button
Close