fbpx
টাইমলাইন

লকডাউন পরিস্থিতিতেও খোলা থাকছে শেয়ারবাজার

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসে ইতিমধ্যে আক্রান্ত 421,000; মারা গিয়েছেন 18,800 , 107,000 জন আক্রান্ত রোগী সুস্থ হয়েছেন। ভারত ও আক্রান্তের সংখ্যা 50 ছাড়িয়েছে। এই পরিস্থিতিতে লক ডাউন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কেন্দ্র। 32 টি রাজ্য সাতটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হবে এই লকডাউন। এই লক ডাউন এর আওতায় অনেক শিল্প-কারখানা অফিস আদালত বন্ধ থাকলেও শেয়ার বাজার এমনটাই জানিয়েছেন কেন্দ্র সরকার।


পাশাপাশি, আগামী তিন মাসে দেশের যেকোনো জায়গার যেকোনো এটিএম থেকে যতবার খুশি টাকা তুললে কোনরকম ফি বা চার্জ কাটা হবে না।

পাশাপাশি, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর নির্মলা সিতারামান মঙ্গলবার করোনা পরিস্থিতিতে দেশের জনগণ ও শিল্পপতিদের উদ্দেশ্যে একাধিক জরুরী ঘোষণা করে কিছুটা স্বস্তি দিলেন
২০১৮-১৯ অর্থ বর্ষের আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ বাড়িয়ে করা হল ৩০ জুন। দেরি হলে সুদের হার ১২ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৯% হারে দিতে হবে।

আধারের সঙ্গে প্যান সংযুক্তিকরণের সময়সীমা ৩১ মার্চ থেকে বাড়িয়ে করা হল ৩০ জুন।

টিডিএস রিটার্ন জমা দেওয়ার শেষ দিন না বদলালেও টিডিএস দেরি কই জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে আগের ১৮ শতাংশ সুদ কমিয়ে করা হয়েছে ৯ শতাংশ।

৫ কোটি টাকার কম বার্ষিক লেনদেন সংস্থাগুলির ক্ষেত্রে আয়কর রিটার্নের ক্ষেত্রে সুদ দিতে হলেও দিতে হবেনা লেট ফি।

বর্তমানে নতুন সংস্থার নথিভুক্তিকরণের ক্ষেত্রে এক বছরের মধ্যে ডিক্লারেশন বা ঘোষণাপত্র দিলেই হবে। আগে যা ছিল ৬ মাস

মার্চ-এপ্রিল-মে জিএসটি জমা দেওয়ার সময়সীমা বেড়ে হয়েছে ৩০ জুন।

Back to top button
Close
Close