টাইমলাইনখেলাক্রিকেট

শেষ হল ভারতের এই তিন তারকা ক্রিকেটারের কেরিয়ার, এবার ফিরে আসা অসম্ভব

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: ভারতীয় জাতীয় দলের হয়ে ক্রিকেট খেলা দেশের সব ক্রিকেটারেরই স্বপ্ন। প্রজন্মের পর প্রজন্ম ভারত দেশ ও বিশ্বকে সেরা কিছু খেলোয়াড় দিয়েছে। এই মুহূর্তে ভারতীয় দলে প্রতিদ্বন্দ্বিতা ক্রমাগত বাড়ছে। তরুণ ক্রিকেটাররা ঘরোয়া ক্রিকেট এবং আইপিএলে দুরন্ত কিছু পারফরম্যান্স করেছে, যার ফলে আপাতত সরু সূতোর ওপর ঝুলতে শুরু করেছে কিছু বড় ক্রিকেটারের কেরিয়ারে। আজ হোক অথবা কাল, শেষ হয়ে যেতে পারে ভারতীয় দলে তাদের যাত্রার। ভারত বনাম নিউজিল্যান্ড টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টের চতুর্থ দিনে রইলো এমনই কিছু ক্রিকেটারের পারফরম্যান্সের ব্যাখ্যা।

ইশান্ত শর্মা:

Ishant Sharma

টেস্ট ক্রিকেটের নিয়মিত বোলার ইশান্ত শর্মাকে ওয়ানডে ক্রিকেটে দেখা যায় না অনেক দিন ধরেই। ২০০৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ওয়ান ডে অভিষেক হয় ইশান্তের। ইশান্ত এখন পর্যন্ত ৮০ টি ওয়ান ডে খেলে নিয়েছেন মোট ১১৫টি উইকেট। ইশান্ত শর্মা ২০১৬ সাল থেকে একটিও ওয়ান ডে খেলেননি। এবার টেস্ট ক্রিকেটেও তার জায়গা পাওয়া নিয়ে তৈরি হচ্ছে সন্দেহ। কানপুর টেস্টে প্রথম ইনিংসে ১৫ ওভার বল করে কোনও উইকেট পাননি তিনি। পরের ম্যাচ থেকেই হয়তো তার জায়গায় দলে আসতে পারেন মহম্মদ সিরাজ।

 

অজিঙ্কা রাহানে:

কানপুর টেস্টে বিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতে অধিনায়কত্ব করা অজিঙ্কা রাহানে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেবেন বলে আশা করা হয়েছিল। কিন্তু এই অভিজ্ঞ ব্যাটার দুই ইনিংসেই ব্যর্থ হন। প্রথম ইনিংসে মাত্র ৩৫ রান করা রাহানে এই ইনিংসে মাত্র ১৫ বলে ৪ রান করে আউট হন। কিছুদিন ধরেই টেস্ট দলের সবচেয়ে বড় দুর্বলতা হয়ে উঠছেন রাহানে। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে টিম ইন্ডিয়ার পক্ষে সবচেয়ে খারাপ ফর্মে থাকা ক্রিকেটার ছিলেন তিনিই। অস্ট্রেলিয়ায় একটি শতরান ছাড়া কিছু করতে পারেননি। ফলে বিরাট, রোহিত দলে ফিরলে এবার তিনি বাদ পড়তে পারেন টেস্ট দলে থেকে। ওয়ান ডে বা টি টোয়েন্টি খেলার সুযোগ অনেক দিন ধরেই পান না। ফলে টেস্ট থেকে বাদ পড়লে বলাই যায় ভারতের হয়ে রাহানের খেলার দিন শেষ।

 

চেতেশ্বর পূজারা:

২০১৯ সালের জানুয়ারি মাসের পর থেকে আর কোনও শতরান করতে ব্যর্থ পূজারা, গত বেশ কয়েকদিন ধরেই সামান্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস বাদে একপ্রকার ব্যাট হাতে আশ্চর্যরকমের ফিকে। পূজারা নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ইনিংসে মাত্র ২৬ রান করেন এবং টিম সাউদির বলে আউট হয়ে ফিরে যান। তখন সমর্থকরা বলেছিলেন তিনি নেতিবাচক ক্রিকেট খেলছেন। দ্বিতীয় ইনিংসে শুরুটা ইতিবাচক ভাবে করেন তিনি। কিন্তু মাত্র ২২ রান করে জেমিশনের স্বীকার হন তিনি। বিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতে তাঁর কাছ থেকে যে ধরণের ক্রিকেট প্রত্যাশা করা হয়েছিল, সেই প্রত্যাশা মেটাতে ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। ফলে পরের ম্যাচে তার জায়গায় সূর্যকুমার যাদব-কে সুযোগ দেওয়া হতে পারে।

Related Articles

Back to top button