টাইমলাইনভারত

নিজের জন্য গোল্ডেন মাস্ক বানালেন উড়িষ্যার এই ব্যাক্তি, দাম শুনলে কপালে উঠবে চোখ

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ পুনের পর এবার উড়িষ্যা (Odisha), আবারও ফিরে এল গোল্ডেন মাস্কের (Golden Mask) ট্রেন্ড। মাস্ক (Mask), করোনা ভাইরাসকে রুখতে এটিই একমাত্র সহজ পন্থা। বর্তমানে মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলকও করা হয়েছে। তবে এরই মধ্যে স্যোশাল মিডিয়ার পর্দায় বেশ কিছু অবাককর মাস্কের ছবিও ভাইরাল (Viral) হচ্ছে। শুধুমাত্র ত্রিস্তর বিশিষ্ট কাপড়ের মাস্ক ছাড়াও আমরা কিছু স্যোশাল মিডিয়ার দৌলতে সোনার এবং হীরক খোচিত মাস্কও দেখেছি।

সোনার মাস্ক
মহারাষ্ট্রের পুনের বাসিন্দা সোনা পাগল শঙ্কর কুরাড নিজের জন্য স্পেশাল সোনার মাস্ক বানিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন সকলকে। এই সোনার মাস্কের দাম পড়েছিল মাত্র ২ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা। তিনি জানিয়েছিলেন, স্বর্ণ ব্যাবসায়ী মাত্র ৭ দিনেই নাকি তাঁকে এই বিলাশ বহুল মাস্ক বানিয়ে দিয়েছিলেন।

অনুপ্রাণিত হয়ে বানিয়েই ফেললেন সোনার মাস্ক
সোনার মাস্ক পরে, সংবাদের শিরোনামে নামও উঠে এসেছিল শঙ্কর বাবুর। এদিকে এই শঙ্কর বাবুকে দেখে অনুপ্রাণিত হয়ে আরও এক ব্যক্তি নিজের জন্যই বানিয়ে ফেললেন সোনার মাস্ক। কটকের (Cuttack) এক ব্যবসায়ী অলোক মহান্তি, তিনিও সোনা লাভার। আর সেই সুবাদেই সোনার এবং হীরক খোচিত মাস্কও দেখে তিনিও নিজের জন্য অর্ডার দিলে একটি সোনার মাস্কের।

কেমন দাম পড়ল সেই মাস্কের?
২২ দিনের মধ্যেই তাঁর হাতে এই সোনার মাস্ক তুলে দিলেন মুম্বইয়ের জাভেরি বাজারের স্বর্ণকার। অলোক বাবুর সর্বাঙ্গে সোনার গহনা থাকার পাশাপাশি তাঁর মুখেই এবার উঠল সোনার N95 মাস্ক। এই গোল্ডেন ম্যান অলোক মহান্তির এই সোনার মাস্কের দাম পড়েছে প্রায় ৩.৫ লক্ষ টাকা, যার ওজন প্রায় ১০০ গ্রাম। আবার শ্বাস প্রশ্বাস চলাচলের জন্য এই মাস্ক একটি ছিদ্রও রয়েছে। তবে ফ্যাশন তো হবে, কিন্তু সোনার মাস্ক দিয়ে কি প্রতিহত করা যাবে মারণ ভাইরাস করোনাকে, সেটাই দেখার।

Related Articles

Back to top button