টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গভারত

মহা অষ্টমীতে অঞ্জলি দিয়ে সকাল শুরু, জেনে নিন থেকে কুমারী পুজোর মাহাত্ম্যও

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ আজ মহা অষ্টমী (Maha Ashtami), আজকের দিনে মণ্ডপে মণ্ডপে অঞ্জলী দেওয়ার ধুম পড়ে যায়। সকাল থেকেই স্নান সেরে নতুন পোশাক পড়ে সকলেই পুজো প্যান্ডেলে গিয়ে ভিড় জমায়। অষ্টমীতে মায়ের পায়ে অঞ্জলি দিতে সকলেই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে থাকে। তবে বর্তমান সময়ে করোনা আবহের কারণে এবছর দর্শক বিহীন, দর্শনার্থী বিহীন দূর্গা পুজো কাটাচ্ছে বাংলার সমস্ত মন্ডপ।

অষ্টমী তিথি শুরু হচ্ছে- ২৩ শে অক্টোবর শুক্রবার সকাল ১১ টা বেজে ৫৬ মিনিট ৭ সেকেন্ড থেকে শুরু হয়ে ২৪ শে অক্টোবর শনিবার সকাল ১১ টা বেজে ২২ মিনিট ২৯ সেকেন্ড অবধি থাকছে।

এইদিন শাস্ত্র অনুযায়ী ১ বছর বয়স থেকে ১৬ বছর বয়সী ব্রাহ্মণ সহ যে কোন গোত্রের অবিবাহিত অজাতপুষ্প সুলক্ষণা কুমারী মেয়েকে পুজো করা হয়। তবে বয়স ভেদে কুমারীর নামও ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে। প্রকৃতি অর্থাৎ সকল নারী শক্তিকে এই পূজা পর্বের মধ্য দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

কন্যাকুমারী এবং মাদুরাইয়ের মীনাক্ষী দেবীর মন্দিরে কুমারী পুজো করা হয়। ধারণা করা হয়, মন্দিরে নতুন বস্ত্র, ফুলের মালা, মুকুট এবং নানান উপকরণ সহযোগে ভক্তিমনে নিষ্ঠার সঙ্গে কুমারী পুজো ছাড়া দূর্গা পুজো সম্পূর্ণ হয় না।

পুরাতনকালে মুনি ঋষিরা প্রকৃতি পুজোর মাধ্যমে কুমারী পুজো সম্পন্ন করতেন। কারণ প্রকৃতিই হল কুমারীর ভিন্ন রূপ। তাদের ধারণায়, মানুষ চৈতন্য যুক্ত হওয়ায় মানুষের মধ্যেই ঈশ্বরের বাস। কুমারীদের মন সৎ, কলুষতামুক্ত। ফলত তারাই এই পুজোর দেবী হিসাবে মনোনীত হয়ে থাকে।

Back to top button