টাইমলাইনআবহাওয়া

শীতের আমেজের মধ্যেই রয়েছে আগাম বৃষ্টির পূর্বাভাস, জাঁকিয়ে ঠাণ্ডা পড়ার আভাস দিল আবহাওয়া দফতর

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ বাংলায় শীত তাঁর ব্যাডিংপত্র নিয়ে পুরোপুরি গুছিয়ে চলে এসেছে। আবহাওয়ার (Weather) শিরোনামে এবার আর অন্য কাউকে নয়, আগামী ২-৩ মাস সে একাই রাজ করবে। কিন্তু বৃষ্টিও যে নাছোড় বান্দা। ঘূর্ণাবর্তের জেরে বেশ কিছু এলাকায় বৃষ্টির পূর্বাভাস দিল আবহাওয়া দফতর।

আজকের আবহাওয়া
শহরের আকাশে রোদ উঠেছে সাদা মেঘের ফাঁকা দিয়ে। রোদের তীব্রতা আগের মতন না থাকলেও, বেশ একটা মনোরম আবহাওয়া (Weather) বিরাজ করছে। শীতের জামা পাকড় ধীরে ধীরে এবার আলমারী ছেড়ে আলনায় জায়গা নিচ্ছে। সকাল সন্ধ্যের নিত্যযাত্রীদের গায়ে উঠছে হালকা গরম পোশাক। এবার থেকে আগামী ২-৩ মাস জাঁকিয়ে থাকবে হাড়কাপানো ঠাণ্ডা।

আজকের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে। তবে সকালের তাপমাত্রা একটু বেশি থাকলেও, রাতের তাপমাত্রা বেশ খানিকটা কমতে পারে। আজ আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, বাংলার আকাশে সকালের দিকে মূলত আবছা রোদ থাকবে এবং রাতের দিকেও আবছা আকাশ থাকার সম্ভবনা রয়েছে।

ঘূর্ণাবর্তের পূর্বাভাস
আবহাওয়াবিদদের ধারণা অনুযায়ী, এবছর আর মাঝ ডিসেম্বরের আগে হাড়কাপানো শীত নাও পেতে পারে বাংলার মানুষ। তবে দক্ষিণ ভারতে ফিরতি বর্ষা চলার কারণে তামিলনাড়ু লাগোয়া বঙ্গোপসাগরে একটি ঘূর্ণাবর্ত সৃষ্টি হওয়ায় আগামী ৯ এবং ১০ ই নভেম্বর বাংলায় বাতাসে ফের বাসা বাঁধতে পারে জলীয় বাষ্প। যার ফলে তাপমাত্রার পতন কিছুটা থমকে যেতে পারে।

বৃষ্টি হতে পারে
তবে এই ঘূর্ণাবর্তের জেরে ভারতের দক্ষিণ ভাগের বেশ কিছু এলাকায় আগাম বৃষ্টির সতর্কতা। উত্তরপূর্বের নাগাল্যান্ড, মনিপুর, ত্রিপুরা, মিজোরামের পাশাপাশি বাংলার উত্তরের কোচবিহার, দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুায়ার, কালিম্পং-এ রয়েছে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা।

Related Articles

Back to top button