টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

দুয়ারে সরকার প্রকল্পকে কটাক্ষ করলেন খোদ তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধান

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দুয়ারে সরকার প্রকল্প নিয়ে এতদিন বিরোধীরা কটাক্ষ করে এসেছিল, এবার তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধানও দুয়ারে সরকার প্রকল্প নিয়ে কটাক্ষ করলেন। হাওড়ার জগদীশপুর পঞ্চায়েতের তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধান গোবিন্দ হাজরা বলেন, দুয়ারে সরকার প্রকল্পে মানুষ কোনও উপকারই পাচ্ছেন না। উল্টে তাঁরা চূড়ান্ত হয়রানির শিকার হচ্ছে। তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধানের এহেন মন্তব্যের শুরু হয়েছে জোর বিতর্ক।

জানা গিয়েছে যে, গতকাল দুয়ারে সরকার প্রকল্পের মাধ্যমে সাহায্য নিতে যাওয়া মানুষদের সমস্যা মেটাতে পারেন নি সরকারি কর্মীরা। এরপর গোবিন্দ হাজরা তাঁদের আটকে রাখার হুমকি দেন। এই ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই তৃণমূলের জেলা নেতৃত্ব অভিযুক্ত পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানায়।

গতকাল দুয়ারে সরকার প্রকল্পের সুবিধা নিতে যাওয়া মানুষের ব্যাপক ভিড় ছিল। কিন্তু কম সরকারি কর্মী আসায় মানুষেরা ঠিকঠাক পরিষেবা পাচ্ছিলেন না, আর তাঁদের ভোগান্তি বেড়েই চলছিল। সেখানে উপস্থিত মানুষজন অভিযোগ করে বলেন যে, দুয়ারে সরকার শিবিরে আসার পরেও তাঁদের ব্লক অফিসে যেতে বলা হচ্ছে। ওনাদের কথা শুনে ব্লক অফিসে গেলে আবার দুয়ারে সরকার শিবিরে যাওয়া কথা বলা হচ্ছে। উপস্থিত জনতা বলেন, এখানে শুধু মানুষদের হয়রানিই করা হচ্ছে, আর কিছু না।

জনতার সমস্ত অভিযোগ শুনে রেগে লাল হয়ে যান পঞ্চায়েত প্রধান গোবিন্দ হাজরা। তিনি বলেন, বার্ধক্য ভাতা, রেশন কার্ডের জন্য দুয়ারে সরকার শিবিরে গেলে উল্টে তাঁদের ব্লক অফিসে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আবার ব্লক অফিসে গেলে বলা হচ্ছে দুয়ারে সরকার শিবিরে যেতে। এগুলো মানুষকে হয়রানি করা ছাড়া কিছুই না। নামেই দুয়ারে সরকার। কিন্তু কাজ কিছুই হয় না। সরকারি আধিকারিকরা দুর্নীতিগ্রস্ত হওয়ার কারণেই এসব হচ্ছে।

এরপর তৃণমূল পঞ্চায়েত প্রধান সরকারি আধিকারিকদের হুমকির সুরে বলেন, ‘মানুষকে এভাবে হয়রান করা যাবে না। এদের যদি এভাবে হয়রান করা হয়, তাহলে এরা সবাই মিলে সরকারি আধিকারিকদের আটকে রাখবে।

Back to top button