টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

করোনায় বন্ধ ছিল স্কুল, জমি দখল করে পার্টি অফিস বানানো শুরু করল তৃণমূল

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বাংলায় জমি দখল করে পার্টি অফিস বানানোর ঘটনা নতুন নয়। বহুদিন ধরে বিভিন্ন জায়গা থেকেই এরকম অজস্র অভিযোগ উঠে এসেছে। কখনো ব্যক্তিগত জমি, আবার কখনো সরকারি জমি দখল করে পার্টি অফিস বানানোর অভিযোগ উঠেছে বিভিন্ন শাসক দলের বিরুদ্ধে। তবে স্কুলের জমি দখল করে পার্টি অফিস বানানোর অভিযোগ এই প্রথম।

করোনার কারণে বিগত দেড় বছর ধরে গোটা দেশ তথা পশ্চিমবঙ্গেও স্কুলে পঠনপাঠন বন্ধ ছিল। সবই চলছিল অনলাইনে। তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কালী পুজোর পর স্কুল খোলার নির্দেশ দিয়েছেন। আর সেই নির্দেশ অনুযায়ী, করোনা বিধি মেনে রাজ্যে খোলা হয়েছে স্কুল। কিন্তু এর মধ্যেই এক চাঞ্চল্যকর ঘটনা সবাইকে অবাক করে দিয়েছে।

করোনার কারণে বন্ধ থাকা স্কুলের জমি দখল করে পার্টি অফিস বানানোর অভিযোগ উঠেছে শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এমনকি স্কুলের প্রধান শিক্ষক বাধা দিতে গেলেও, তৃণমূলের নেতারা কর্ণপাত করেন নি বলে অভিযোগ। যদিও, প্রধান শিক্ষক শৈলেনচন্দ্র মণ্ডল পুলিশের দ্বারস্থ হওয়ায় আপাতত বন্ধ রয়েছে পার্টি অফিস নির্মাণের কাজ।

ঘটনাটি ঘটেছে মুর্শিদাবাদ জেলার সামসেরগঞ্জ থানার রেজিনগর এলাকায়। সেখানে মালঞ্চা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার মালঞ্চা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমি দখল করে তৃণমূলের পার্টি অফিস নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল নেতা উত্তম সাহা এবং বাকিদের বিরুদ্ধে।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক অভিযোগ করে বলেছেন, ‘করোনার জেরে স্কুল বন্ধ থাকার সময় পার্টি অফিস নির্মাণের কাজ শুরু হয়। স্কুলে এসে দেখি ভীত পর্যন্ত গাঁথা হয়ে গিয়েছে। আমি প্রতিবাদ করেছিলাম, কিন্তু কেউ শোনে নি। এরপর আমি পুলিশের কাছে যাই। পুলিশের হস্তক্ষেপে আপাতত নির্মাণ কাজ বন্ধ রয়েছে।” স্কুলের জমিতে পার্টি অফিস নির্মাণে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা উত্তম সাহা আবার পুরো বিষয়টি এড়িয়ে গিয়েছেন। তিনি পরিস্কার জানিয়েছেন যে, এই বিষয়ে তাঁর কিছুই জানা নেই।

Related Articles

Back to top button