fbpx
টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

বাম-তৃণমূলের হিংসার আগুনে জ্বলছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলতলি! মৃত দুই, জ্বলল ৩০ টি বাড়ি

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বাম-তৃণমূল (All India Trinamool Congress) সংঘর্ষে উত্তপ্ত দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলতলি ব্লকের মৈপীঠ এলাকা। এক তৃণমূল কর্মীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। শনিবার দুপুরে উদ্ধার হওয়া এক বাম নেতার ঝুলন্ত দেহ। দুই পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩০ টি বাড়ি জ্বলছে দাউদাউ করে। চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ার পরেও এখনো বেশ কয়েকটি গ্রামে ঢুকতে পারেনি পুলিশ।

ঘটনার সূত্রপাত গতকাল রাতে। শাসক দল তৃণমূলের তরফ থেকে করা অভিযোগ অনুযায়ী, নাগেনাবাদ থানা এলাকায় দলীয় কাজ সেরে বাড়ি ফিরছিলেন দুই তৃণমূল কর্মী অশ্বিনী মান্না আর নবকুমার গিরি। সেই সময় ওই দুই তৃণমূল কর্মীর পথ আটকে দাঁড়ায় কয়েকশ বাম এবং এসইউসি কর্মী। হাতে ছিল লোহার রড, দা আর কুড়ুল। সেই দিয়ে ওই দুই তৃণমূল কর্মীর উপর হামলা চালায় তাঁরা। ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয় বারবার।

তৃণমূল কর্মীদের আর্তনাদ শুনে ছুটে আসে এলাকাবাসী। এরপরই স্থানীয়দের দেখে এলাকা ছেড়ে পালায় বাম কর্মীরা। স্থানীয় বাসিন্দারা তৎপর হয়ে আহত দুই তৃণমূল কর্মীকে হাসপাতালে ভর্তি করে। জামতলা গ্রামীণ হাসপাতালের চিকিৎসকরা অশ্বিনী মান্নাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। নবকুমারের অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে তাঁকে সাথে সাথে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে নবকুমার।

এই ঘটনার পরেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। তৃণমূল কর্মীদের মাথায় জ্বলে বদলার আগুন। শুরু হয় দুপক্ষের খুনি সংঘর্ষ। পরিস্থিতি সামাল দিতে বিশাল পুলিশ বাহিনী উপস্থিত হয় এলাকায়। সংঘর্ষে দুই দলের বেশ কয়েকজন আহত হয়। ভোর হতে না হতেই আরও চরে উত্তেজনার পারদ। বেশ কয়েকটি দোকান এবং বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। গাছের গুড়ি দিয়ে রাস্তা অবরোধ করে শাসক দলের কর্মীরা।

শনিবার এই সংঘর্ষ আরও ভয়ঙ্কর রুপ ধারণ করে। একের পর এক বাড়িতে ধরিয়ে দেওয়া হয় আগুন। আর সেই আগুনে পুড়ে যাওয়া একটি বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় এক বাম নেতার ঝুলন্ত দেহ। উদ্ধার হওয়া ওই নেতার নাম সুধাংশু জানা (৫০) তিনি এসইউসি জেলা কমিটির সদস্য বলে জানা যায়। সুশান্ত বাবুর মৃত্যুর রহস্য ঘনীভূত হচ্ছে। আদৌ কি এটা আত্মহত্যা না মার্ডার, সেটা নিয়ে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। এই ঘটনায় এখনো পর্যন্ত ১১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। টহলদারি চলছে গোটা এলাকায়।

Back to top button
Close