টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

আমি হারলে দলকে বলে দিতাম আমি মুখ্যমন্ত্রী হব না, নন্দীগ্রামে মমতার হার নিয়ে খোঁচা বিপ্লবের

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ বাংলায় বিপুল আসন নিয়ে ক্ষমতায় এলেও নিজের কেন্দ্র নন্দীগ্রামে হেরে গিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এবার তৃণমূল সুপ্রিমোর হার প্রসঙ্গে ওনাকে একহাতে নিলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। তিনি বলেন, আমি যদি নিজের বিধানসভা কেন্দ্রে হেরে যেতাম তাহলে মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিতাম না আমি। ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ত্রিপুরায় বিজেপি সব আসনে জিতলেও আমি যদি বনমালীপুরে হেরে যেতাম তাহলে আমি দলকে বলতাম মুখ্যমন্ত্রী হব না।”

মঙ্গলবার ত্রিপুরায় বিজেপির সদর দফতরে একটি সাংবাদিক বৈঠক ডাকা হয়েছিল। সেই বৈঠকে বাংলায় ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে সরব হয় ত্রিপুরা বিজেপি। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেন, ‘ভোট গণনার পর থেকে পশ্চিমবঙ্গে বল্গাহীন সন্ত্রাস শুরু করেছে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। জেলায় জেলায় যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তা ভয়াবহ। বিজেপি কার্যকর্তাদের খুন করা, বাড়িঘর-দোকানপাট লুঠ করার মতো ঘটনা ঘটছে।”

বিপ্লববাবু আরও বলেন, ‘নারকীয় আক্রমণ থেকে রেয়াত করা হচ্ছে না মহিলাদেরও। পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার জগদ্দলে এক বিজেপি কার্যকর্তার উপর হামলা করতে গেলে সন্তানকে রক্ষা করতে গিয়ে খুন হয়েছেন তাঁর মা। গ্রামে গ্রামে মহিলাদের উপর নির্বিচার অত্যাচার হচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গে আইনশৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে। অথচ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নীরব। তাঁরই তো দায়িত্ব এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা, বার্তা দেওয়া। কিন্ত তিনি চুপ করে রয়েছেন এবং তাঁর দলের গুণ্ডাবাহিনী সন্ত্রাস চালাচ্ছে। নির্বাচনে হার-জিত থাকেই। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর দলীয় নেতার ঊর্ধ্বে উঠে রাজধর্ম পালন করা উচিত।”

Back to top button