টাইমলাইনখেলা

বারো বছর পরে ফের চার বলে চার উইকেট নিয়ে সকলকে চমকে দিলেন ৩৬ বছর বয়সী লাসিথ মালিঙ্গা।

ফের চার বলে 4 উইকেট নিয়ে বিশ্বক্রিকেটে নজির গড়লেন শ্রীলংকার তারকা পেস বোলার লাসিথ মালিঙ্গা। এই 36 বছর বয়সে এসেও এমন বলের জাদু দেখালেন লাসিথ মালিঙ্গা যে মালিঙ্গার বলের সামনে অসহায় শিশুর মতো দেখাচ্ছিল পুরো নিউজিল্যান্ড ব্যাটিং লাইন আপকে।

শুক্রবার শ্রীলঙ্কার পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছিল শ্রীলঙ্কা। এই ম্যাচে ফের বারো বছর আগের স্মৃতি ফিরিয়ে নিয়ে এলেন শ্রীলঙ্কান পেসার লাসিথ মালিঙ্গা। নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং চলাকালীন তৃতীয় ওভারে এবং লাসিথ মালিঙ্গার ব্যক্তিগত দ্বিতীয় ওভারে পরপর চার বলে নিউজিল্যান্ডের চারজন তাবড় তাবড় ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে দিলেন সাজঘরে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার চার বলে চার উইকেট নিয়ে বিশেষ নজির গড়লেন এই শ্রীলঙ্কান ডান হাতি পেসার লাসিথ মালিঙ্গা।

2007 সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ওয়ানডে ম্যাচে লাসিথ মালিঙ্গা পরপর চার বলে চারটি উইকেট শিকার করে ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবার এই বিশেষ নজির গড়ে ছিলেন। আর এবার টি-টোয়েন্টি ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের চার ব্যাটসম্যান কলিন মুনরো, হামিশ রাদারফোর্ড, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম এবং রস টেলরের উইকেট নিয়ে ফের একবার চার বলে চার উইকেট নিয়ে শিরোনামে উঠে এলেন লাসিথ মালিঙ্গা। সেই সাথে তিনি বিশ্বের প্রথম বোলার হিসাবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে 100 উইকেটের মালিক হলেন।

এইদিন শ্রীলঙ্কা নির্দিষ্ট কুড়ি ওভারে 125 রান করে 8 উইকেটে বিনিময়ে। আর শ্রীলঙ্কার এই ছোটো টার্গেটের লক্ষ্যে নেমে মাত্র 88 রানে নিউজিল্যান্ডের ইনিংস শেষ হয়ে যায়। এর নেপথ্যে রয়েছে মালিঙ্গার ঝোড়ো বোলিং। এইদিন মালিঙ্গার বোলিং এর সামনে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেননি নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা। এদিন মালিঙ্গা চার ওভার বল করে মাত্র ছয় রান দিয়ে তুলে নেন পাঁচটি উইকেট এবং সেই সাথে ম্যাচের সেরা হন তিনি। এই প্রসঙ্গে মালিঙ্গাকে প্রশ্ন করা হলে উনি বলেন যে চার বলে চার উইকেট পাওয়া সত্যিই আনন্দের, তবে আমি আমার নিজের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেই বল করেছি বিশেষ কিছু করতে চাইনি।

Back to top button