টাইমলাইনআন্তর্জাতিক

তুর্কির বিরুদ্ধে চারটি F-16 ফাইটার জেট পাঠালো UAE, আশঙ্কার মেঘ দেখছে এরদোগান

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ তুর্কির (Turkey) বিরুদ্ধে আরব আমিরাত United arab emirates) এক বড় পদক্ষেপ নিয়েছে। গ্রিসের একটি সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী, UAE গ্রিসে তুর্কির বিরুদ্ধে কোমর বেঁধে নেমেছে। UAE গ্রিসের হেলেনিক এয়ারফোর্সের সাথে সংযুক্ত সামরিক মহড়া করার জন্য নিজেদের চারটি F-16 ফাইটার জেট পাঠিয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, গ্রিসের সেনার সাথে পূর্ব ভূমধ্যসাগরে সংযুক্ত সামরিক মহড়া করবে। আরব আমিরশাহীর এই পদক্ষেপে দুই মুসলিম দেশের মধ্যে অসামঞ্জস্য পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা বেড়ে গিয়েছে।

তুরস্কের সাথে গ্রিসের বিবাদ চরমে যাওয়ার পরেই আরব এই পদক্ষেপ নিয়েছে। তুর্কি গত মাসে গ্রিসের সামুদ্রিক এলাকায় খনন করার জন্য জওয়ান আর নৌসেনার জাহাজ মোতায়েন করেছিল। তুর্কি বিতর্কিত সামুদ্রিক এলাকাকে নিজের বলে দাবি করে আসছে। দুই দেশই নাটোর সদস্য, যদিও বিগত কিছু সময় ধরে তুর্কির সেনার সাথে নাটোর সম্পর্ক খারাপ হয়েছে।

রিপোর্ট অনুযায়ী, গ্রিস হেলেনিক ন্যাশনাল ডিফেন্স স্টাফের প্রধান UAE এর লেফটেন্যান্ট হামাদ মোহাম্মদ ঠাঁই আল রুমেনির সাথে বৃহস্পতিবার বৈঠক করেন।

তুর্কির রাষ্ট্রপতি এরদোগান বলেছিলেন যে ওনার দেশ গ্রিসের সাথে কোনোরকম সমস্যা চায় না। এরদোগান এও বলেছিলেন যে কথাবার্তায় এই সমস্যা সমাধান করা যায়। এরদোগান বলেছিলেন, ‘যদি আমরা কমন সেন্স আর লজিকের সাথে পদক্ষেপ নিই, তাহলে দ্রুত সমস্যার সমাধান হবে।”

সম্প্রতি তুরস্ক রাশিয়ার থেকে S-400 জমিন থেকে হাওয়ায় লক্ষ্য ভেদ করা মিসাইল সিস্টেমের দ্বিতীয় ক্ষেপ কেনার জন্য মঞ্জুরি দিয়েছে। তুরস্ক এই পদক্ষেপ আমেরিকার থেকে জারি নিষেধাজ্ঞার পরেও নিয়েছে। যখন তুরস্ক রাশিয়ার থেকে মিসাইল সিস্টেমের প্রথম ক্ষেপ যখন কিনেছিল, আমেরিকা তখন তুরস্ককে নিজেদের এফ-৩৫ জয়েন্ট ফাইটার প্রোগ্রাম থেকে বের করে দিয়েছিল।

এমনকি সিরিয়ায় তুর্কি আমেরিকা সমর্থিত কুর্দিশ সেনার বিরুদ্ধে হামলা করেছিল। তুর্কিএ হামলার কয়েক ঘন্টা আগে আমেরিকা সেখানকার সেনা ঠিকানা গুলোকে খালি করে দিয়েছিল।

Related Articles

Back to top button