টাইমলাইনভারত

মথুরার মন্দিরে নামাজ পড়ে যোগীর পুলিশের হাতে গ্রেফতার এক! বাকিদের চলছে খোঁজ

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ উত্তরপ্রদেশের মথুরা জেলার নন্দগাওয়ের (Nandgaon) নন্দবাবা মন্দিরে (Nandbaba Nand Mahal Temple) প্রতারণা করে নামাজ পড়ার মামলায় দিল্লীর বাসিন্দা ফৈসল খানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। দিল্লী থেকে ফৈসলকে গ্রেফতার করে মথুরার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে যোগীর পুলিশ।

জানুন পুরো ঘটনা …  মথুরার (Mathura) নন্দবাবা মন্দিরে (nandbaba temple) প্রতারণা করে নামাজ পড়ায় পুলিশ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। বরসানা থানায় ফৈসল খান, মোহম্মদ চাঁদ সমেত চারজনের বিরুদ্ধে ধারা 153-A, 295,505 অনুযায়ী মামলা দায়ের হয়েছে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, এরা মন্দিরের পুরোহিতদের মিথ্যে কথা বলে মন্দির চত্বরে নামাজ পড়েছিল। অভিযোগ উঠেছে যে, এই কাজের ফলে মন্দিরের মর্যাদা লঙ্ঘন হয়েছে আর হিন্দু সমাজের মানুষের ধার্মিক মনোভাবনায় আঘাত করা হয়েছে।

মন্দিরের সেবায়তের তরফ থেকে পুলিশ রবিবার বিকেলে রিপোর্ট দায়ের করেছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, ২৯ অক্টোবর দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ নন্দবাবা মন্দির নন্দগাওয়ে ফৈসল খান আর মোহম্মদ চাঁদ তাঁদের সঙ্গী অলোক রতন আর নীলেশ গুপ্তার সাথে মন্দিরে প্রবেশ করেছিল। ফৈসল দিল্লী খোদা খিদমতগার সংস্থার সদস্য।

তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে যে, মন্দির চত্বরে ফৈসল আর মোহম্মদ চাঁদ সেবায়তদের অনুমতি ছাড়াই নামাজ পড়েছিল। শুধু তাই নয়, এদের সঙ্গিরা নামাজের ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে দেয়। রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, এদের এই কাজে হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে রোষের সৃষ্টি হয়েছে। সেবায়তরা এদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন।

Back to top button