আন্তর্জাতিকটাইমলাইনভারত

তাইওয়ান সীমান্তে যুদ্ধ জাহাজ ঢুকিয়ে দিল আমেরিকা, রীতিমতো চাপে জিনপিং সরকার

Bangla Hunt Desk: আমেরিকা (America) এবং চীনের (China) মধ্যে হংকংকে নিয়ে ব্যবসায়িক সমস্যায় স্থিরতা আসার পর তাইওয়ানকে (Taiwan) নিয়ে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা তুঙ্গে। তাইওয়ানকে সাহায্য করতে তাই মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ USS বেরি পাঠাচ্ছে আমেরিকা। মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ তাইওয়ানের সীমান্তে প্রবেশের ঘটনায় হাঁটু কাপতে শুরু করেছে চীনের।

চীন সরকার যতই লাফালাফি করুক না কেন, তারা খুব ভাল করেই জানে আমেরিকার ক্ষমতার কাছে তারা নেহাতই শিশু। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে নিজেদের দুর্বলতার প্রকাশ দেখিয়ে পিছিয়ে না গিয়ে উলটে আমেরিকাকে তাদের এই ধরনের আচরণ সংযত করতে হুঁশিয়ারি দিয়েছে চীন সরকার। উলটে আমেরিকাও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, সমুদ্রে শান্তি বজায় রাখতে তাদের এই আচরণ জারি থাকবে।

চীন আবার তাইওয়ানকে জোর করে নিজেদের অংশ বলে দাবি জানায়। প্রশান্ত মহাসাগরে আমেরিকা তাইয়ানের সুরক্ষায় USS বেরি মোতায়েন রেখেছে আমেরিকা। সেখানে নিয়মিত যুদ্ধের মহড়াও দিচ্ছে মার্কিন সেনারা। আমেরিকার এই আচরন দেখে চীন সরকার কিছুটা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে।

আমেরিকার প্যাসেফিক ফিল্ড জানিয়েছে, তাইওয়ানের মধ্যে দিয়ে আমেরিকার যুদ্ধ জাহাজ যাওয়ার অর্থ প্রশান্ত মহাসাগরে মার্কিন সেনারা অন্তরাষ্ট্রীয় আইন অনুসর করতে যুদ্ধ জাহাজ এবং বিমান বাহিনী নজর রাখবে।

মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ যখন তাইওয়ানের দিকে রয়েছে, ঠিক সেই সময়ই আবার চীন সরকার তাঁর সেনাদের যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে আমেরিকা চীনকে সতর্কবার্তা দেওয়ার পরও যদি চীন কোন কর্ণপাত না করে, তাহলে তাদের জন্য দ্বিগুণ ডোজ তৈরি করে রেখেছে মার্কিন সরকার।

এদিকে আমেরিকা তাওইয়ানের পাশে দাঁড়ানোর জন্য তাদেরকে আধুনিক অস্ত্র দেওয়ার সিদ্ধান্তও নিয়েছে মার্কিন সরকার। কিন্তু আমেরিকার সামনে নিজদের দুর্বলতাকে ঢাকতে আবার, এই অস্ত্র না দেওয়ার জন্যও হুমকি দিয়েছে চীন সরকার। বর্তমান পরিস্থিতি এমন অবস্থায় দাঁড়িয়েছে, ভারত আমেরিকা, কোন দিন থেকেই চীনকে আর ছেড়ে দিতে নারাজ।

Back to top button