টাইমলাইনভারত

নদীগর্ভে তলিয়ে যাওয়া ২০০ বছরের পুরোনো শিব মন্দির উদ্ধার, দেখুন ভিডিও

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ কিছুদিন আগেই ওড়িশায় (odissa) মহানদীর নীচে আবিষ্কৃত হয়েছিল গোপীনাথের মন্দির। এবার অন্ধ্রপ্রদেশের (Andra pradesh) পেরুমালাপাদু গ্রামে পেন্না নদীর ধার থেকে নদী গর্ভে হারিয়ে যাওয়া ২০০ বছরের প্রাচীন শিব মন্দির আবিষ্কার করলেন প্রত্নতাত্ত্বিকরা।

ইতিহাস অনুসারে, আজ থেকে ৮০ বছর আগে পেন্না নদী তার গতিপথ পরিবর্তন করে এই মন্দিরটির উপর দিয়েই বইতে শুরু করে। সম্পূর্ণ মন্দিরটিই নিমজ্জিত হয় নদীগর্ভে। নদীর ধারে বালি খুঁড়তে গিয়ে এই মন্দিরের চূড়া প্রথম জনগনের নজরে আসে। তারপর প্রত্নতাত্ত্বিকরা সম্পূর্ণ মন্দিরটি নদীগর্ভ থেকে উদ্ধার করে।

কিছুদিন আগেই, ওডিশার নয়াগড় জেলার ভাপুর তহসিলের অন্তর্গত পদ্মাবতী গ্রামের এই গোপীনাথ মন্দিরের চূড়ো ১১ বছর পর জলের ওপর উঠে এসেছে। ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল ট্রাস্ট ফর আর্ট অ্যান্ড কালচার-এর (ইনট্যাক) পুরাতাত্ত্বিক দল ইতিমধ্যেই এই মন্দির সম্পর্কে গবেষনা শুরু করেছে বলে জানা যাচ্ছে৷ তারা জানাচ্ছেন, এই মন্দির কৃষ্ণের অবতার গোপিনাথজীকে উৎসর্গীকৃত। ১৯ শতকে অঞ্চলটি নদীবক্ষে হারিয়ে গেলেও মাঝে মধ্যেই এই মন্দিরটির চূড়া দেখতে পান স্থানীয়রা।

জানা যাচ্ছে, সাতপাটানার অংশ পদ্মাবতী গ্রামটির ইতিহাস সুপ্রাচীন। ষোড়শ শতকেও গ্রামটি সমৃদ্ধশালী জনপদ ছিল। ১৯ শতকে মন্দির গুলি নদীগর্ভে হারিয়ে গেলে মন্দির থেকে বিগ্রহ উদ্ধার করে উঁচু জমিতে পুনঃপ্রতিষ্ঠা করেন গ্রামের বাসিন্দারা। বর্তমানে গোপীনাথ দেবের আদি মূর্তিটি পদ্মাবতী গ্রামের মন্দিরে রয়েছে।

স্থানীয় মিথ অনুযায়ী, ঐ অঞ্চলে রয়েছে মোট ২২ টি মন্দির। যার মধ্যে শুধুমাত্র গোপীনাথ মন্দিরের চুড়ো জলের ওপর থেকে মাঝে মধ্যে দেখা যায়। স্থাপত্যরীতি ও নির্মাণের উপাদান বিচার করে প্রত্নতাত্ত্বিকরা জানিয়েছেন, পশ্চিমমুখী এই মন্দিরটি পঞ্চদশ অথবা ষোড়শ শতকে নির্মিত। মুখশালা রীতির অনুসারী এই মন্দিরে রেখ দেউল স্থাপত্যের বিমান লক্ষ্য করা যায়।

 

Related Articles

Back to top button