পশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

রাজ্য পুলিশ নয়, কেন্দ্রীয় বাহিনী এলেই বাংলায় অবাধ নির্বাচন সম্ভব, দাবি বিজয়বর্গীর

বাংলা হান্ট ডেস্ক: আগামী ২০২১ সালের শুরুতেই বাংলায় বিধানসভা ভোট। কিন্তু রাজ্য পুলিশকে দিয়ে সেই ভোট করানোয় বেজায় আপত্তি বিজেপি শিবিরের। রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি বেজায় খারাপ, এমনই অভিযোগ তুললেন বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গী (Kailash Vijayvargiya)। তাঁর দাবি, রাজ্য পুলিশ দিয়ে অবাধ নির্বাচন করা সম্ভব নয়। সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রয়োজন বলে অভিমত তাঁর।

একই সঙ্গে তাঁর অভিযোগ, বাংলায় অনুপ্রবেশের হার মাত্রাতিরিক্ত ভাবে বেড়ে গিয়েছে। ‘রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি একেবারে ভেঙে পড়েছে। তাই আমরা কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে অনুরোধ করেছি, হয় বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা হোক, নাহলে কেন্দ্রীয় বাহিনীর উপস্থিতিতে নির্বাচন করানো হোক। তাহলেই মানুষ নির্ভয়ে ভোট দিতে পারবেন’, বলেন বিজয়বর্গী।

তিনি আরও বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের প্রতিনিধিরা কলকাতা সফরে এসে জানিয়েছিলেন ভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হবে। আমরা চাই, রাজ্য পুলিশকে যাতে ভোটের কাজে না লাগানো হয়। বাংলার পুলিশ বর্তমানে রাজনৈতিক ভাবে পক্ষপাতদুষ্ট। আর সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আমরা ৫০ শতাংশের বেশ ভোট পাব।’

উল্লেখ্য, ২০২১ সালে বাংলা জয় করতে মরিয়া বিজেপি। কিছুদিন আগে পর্যন্ত যেখানে বাংলায় বিজেপিকে খুঁজে পাওয়া যেত না, সেখানে গত লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে ১৮ জন বিজেপি সাংসদ জয়লাভ করেছেন। তাই বাংলা জয় করতে ইতিমধ্যেই পাঁচজন সর্বভারতীয় নেতাকে নিয়োগ করেছে কেন্দ্রীয় বিজেপি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও কদিন আগে রাজ্য সফরে এসে দাবি করেছিলেন আগামী নির্বাচনে বিজেপি ২০০-র বেশি আসন পাবে।

Back to top button