আন্তর্জাতিকটাইমলাইনবিনোদনভাইরাল

ভাইরাল পাকিস্তানি সেনারা অডিও: নেতারা এসি রুমে থাকে, আমারা সীমান্তে মরি, বেতন পর্যন্ত দেয় না।

ভারত এখন আর সেই পুরোনো ভারত নেই যে পাকিস্তানের সব সন্ত্রাসী হামলা কে চুপ করে সহ্য করে নেবে বা পাকিস্তানের হুমকিতে ভয় পেয়ে যাবে। এটা নতুন ভারত প্রতিটা সন্ত্রাসের জবাব দ্বিগুন ভাবে দেবে। যেমন সার্জিক্যাল স্ট্রাইক, এয়ার স্ট্রাইক বা সীজ ফায়ারের নিয়ম ভাঙ্গায় পাকিস্তানে বোমা বর্ষণ। এছাড়া ভারত সরকার কিছুদিন আগে কাশ্মীর দিয়ে 370 ধারাটিও তুলে দিয়েছে যার ফলে পাকিস্তান ও কট্টরপন্থীরা ভীষণ ক্ষেপে আছে। ভারত এখন প্রতিটা পদক্ষেপের জবাব পাকিস্তানকে দ্বিগুন ভাবে দিচ্ছে।

ইসলামিক সন্ত্রাসবাদী ও পাকিস্তানের সেনায় বিদ্রোহ শুরু হয়ে গেছে, ভারতের সীমায় পোস্টে থাকা পাকিস্তানি সেনারা অনেক চাপে আছে।  পাক সেনাদের চাপে থাকার কারন হলো ভারত পুরোপুরি ভাবে পরিবর্তিত হয়ে গেছে, আর পাকিস্তানের সীমায় পোস্টিং থাকা পাকিস্তানি সৈনিকদের উপর পাল্টা প্রত্যাঘাত করে। পাকিস্তানি সৈনিকদের মৃত্যুর সংখ্যাও প্রচুর পরিমানে বেড়ে গেছে। এই কারণেই পাকিস্তানি সেনাদের মধ্যে বিদ্রোহ শুরু হয়ে গেছে। পাক সেনা তাদের সরকারের উপর আক্রোশ প্রকাশ করতে শুরু করেছে।

POK এর সীমা থেকে এক পাকিস্তানি সৈনিক পালিয়ে যায় এবং সে চাকরি করবে না বলে জানায়। আর সাথে একটি অডিও টেপও জারি করে। পাকিস্তানি সৈনিক জানিয়েছে যে- সীমায় আমাদের বলপূর্বক সীজ ফায়ার উলঙ্ঘন কোরান হয়। সরকারের লোকজন ওইদিকে AC ঘরে বসে থাকে আর আমাদের এখানে সীমায় মেরে ফেলছে। পাকিস্তান সেনাটি আরো বলেন যে ভারতের সেনা অনেক বড় এবং ভারতের কাছে লড়াইয়ের অনেক জাহাজ ইত্যাদি আছে কিন্তু পাকিস্তানের কাছে
তার অর্ধেকও নেই। এছাড়া  তাদের ঠিক মতো মাইনে দেওয়া হচ্ছে না কিন্তু নিজেরা ফূর্তি করছে, আর কত সৈন যে বর্ডারে এই ভাবে মারা যাবে তার ঠিক নেই -বলে জানিয়েছেন এই পাকিস্তানি সৈনিক।

শুনুন পাকিস্তান সৈনিকের অডিও টেপ:

পাকিস্তানি সৈনিকটি, পাকিস্তানের বড় অফিসার ও পাকিস্তানি সরকাররের উপর অভিযোগ তুলে চাকরি ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা করে। তিনি বলেন- না খাওয়ার আছে, না মাইনে আছে, শুধু যাও বর্ডারে গিয়ে ভারতের ওই বড় সেনার মোকাবিলা কর, চাইনা এরকম চাকরি।

Leave a Reply

Close
Close