fbpx
টাইমলাইনভারত

ভাইরাল হচ্ছে শচীন পাইলটের প্রেমকাহিনী, সবার অমতে গিয়ে বিয়ে করেছিলেন ফারুক আবদুল্লাহর কন্যাকে

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ শচিন-সারার প্রেম একদিকে কাশ্মীরে প্রতাপশালী রাজনৈতিক পরিবার আবদুল্লাহরা অন্যদিকে, কংগ্রেসের দুঁদে নেতা রাজেশ পাইলট। এই দুই পরিবারের রাজনৈতিক প্রভাব কোনও অংশেই কম নয়।

আর সেই দুই পরিবারের সন্তান শচিন পাইলট (Sachin Pilot) ও ফারুক আবদুল্লাহর কন্যা সারার প্রেম কাহিনি কোনও বলিউড ফিল্মকে হার মানাতে পারে। লন্ডনে শচিনের পড়াশোনার সময়ই সারার সঙ্গে তাঁর পরিচিতি। এরপর দিল্লি ফিরে আসতে হয় শচিনকে।

তবে সম্পর্ক অটুট থাকে। এরপরই বাড়িতে সম্পর্কের কথা জানান দু’জনেই। যার পর বেঁকে বসে আবদুল্লাহ পরিবার। সায় দেননি রাজেশ পাইলটও। দীর্ঘ টালবাহানার পর, পরিবারকে বুঝিয়ে শেষপর্যন্ত বিয়ে হয় শচিন পাইলট ও সারা আবদুল্লাহর।

নব্বইয়ের দশকে যখন কাশ্মীর উপত্যকা এই আন্দোলনের কবলে পড়ছিল, ফারুক আবদুল্লাহ কন্যা সারাকে পড়াশুনার জন্য লন্ডনে পাঠিয়েছিলেন। শচীন পাইলট এবং সারা একটি বিবাহ অনুষ্ঠানের সময় প্রথম দেখা করেছিলেন।

শচীন এরপরে পেনসিলভেনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএ পড়তে শুরু করেন। এই সময়ে, তিনি এবং সারা মিলিত হন এবং প্রেমে বৃদ্ধি পেতে শুরু করেন। কিছুক্ষণ পর শচীন ও সারা একে অপরের সাথে ডেটিং শুরু করলেন। তারপরে লন্ডনে, শচীনকে তার মায়ের সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন এবং তাঁর প্রেমের গল্পের সাথে পরিচয় করিয়েছিলেন। শচিনের নির্দোষ হাসি পুরো মায়ের মন জয় করেছিল।

শচিনের মা এবং কংগ্রেস সাংসদ রমা পাইলট দিল্লির ২০ টি ক্যানিং লেনের সরকারি বাসভবনে খুব সাধারণ পদ্ধতিতে গাঁটছড়া বাঁধলেন। তবে আবদুল্লাহ পরিবারের কোনও ব্যক্তি এই বিয়েতে যোগ দেননি।

সেই সময় ফারুক আবদুল্লাহ লন্ডনে ছিলেন, ওমর আবদুল্লাহ তাঁর পরিশিষ্টের চিকিৎসা করছিলেন। এর প্রসঙ্গে বতরা দিল্লিতে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে দুই পরিবারের সম্পর্ক তিক্ত ছিল। এখন সবকিছু স্বাভাবিক। শচীন ও সারা দুটি সন্তান (অরণ ও বিহান) রয়েছেন।

Back to top button
Close