টাইমলাইনভাইরাল

‘মন্দিরের সামনে এসে ফোন করবেন’, ভাইরাল ঠিকানা পড়ে হাসি থামাতে পারবেন না

বাংলাহান্ট ডেস্ক/ ভাইরাল : বাড়ির ঠিকানা দেওয়ার সময় তা যদি একটু জটিল হয় তবে আমরা অনেক ক্ষেত্রেই পরিচিতকে বলি, অমুক জায়গায় এসে ফোন করবেন আমি নিয়ে যাব। কিন্তু সেই আন অফিশিয়াল ঠিকানা যে অনলাইনে ব্যাবহার করা যায় তা কখনো ভেবেছিলেন? এমনই অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখালেন রাজস্থানের এক ভিডিও অধিবাসী।

বর্তমান যুগ সামাজিক মাধ্যমের যুগ। স্মার্ট ফোনে ধারন যে কোনো ছবি বা ভিডিও সারা বিশ্বের সাথে ভাগ করে নেন নেট পাড়ার বাসিন্দারা। আর সেই ভাইরাল ছবি বা ভিডিও এর জেরেই রাতারাতি তারকা বা খলনায়ক বনে যায় যে কেউ। আবার কোনো কোনো ভিডিও ও ছবি যেমন নেটপাড়াকে ভাবিয়ে তোলে তেমনই অনেক পোস্ট খারাপ সময়েও মন ভাল করে দেয়।

ই কমার্সের বিরুদ্ধে সব থেকে বড় অভিযোগ তারা একজনের পরে পন্য আরেকজনের কাছে পৌঁছে দেয়। এই অবস্থায় অনেকেই যে তার কেনা পন্যটি যাতে অন্যের হাতে না পৌঁছে যায় তার সঠিক ঠিকানা দিতে ৪/৫ লিখে ফেলেন। কিন্তু রাজস্থানের কোটার এক অধিবাসী ফ্লিপকার্টে পন্যের ডেলিভারির জন্য এমন ঠিকানা দিলেন যা দেখে হেসে খুন নেট পাড়া।

মঙ্গেশ প্যান্তিদ্রো নামের টুইটার ব্যবহারকারী ই-কমার্স ওয়েবসাইট ফ্লিপকার্টে একটি প্যাকেজের ডেলিভারি ঠিকানার একটি ছবি শেয়ার করেছেন, যাতে শিপিং / গ্রাহকের ঠিকানা বিভাগে লেখা ঠিকানা পড়ে আপনার হাসি থামবে না। ঠিকানায় তিনি লিখেছেন, 448 চৌথ মাতা মন্দির,আসামাত্রই ফোন করবেন আমি নিয়ে নেব। ‘ মঙ্গেশ এই ছবিটি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘ভারতীয় ই-বাণিজ্য সম্পূর্ণ আলাদা’।

টুইটটি ভাইরাল হতেই ফ্লিপকার্টও এই পোস্টে কমেন্ট করেছে। তারা লিখেছে, বাড়ি একটি মন্দির, আমরা এই জিনিসটিকে একটি নতুন স্তরে নিয়ে যাচ্ছি।

 

Related Articles

Back to top button