টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গবিশেষভিডিও

একটি হাত না থাকলেও কাজ করার ইচ্ছা রয়েছে, Zomato ডেলিভারি এই ভাইরাল ভিডিও চোখে জল এনে দেবে

বাংলাহান্ট ডেস্ক : কথায় বলে “মনের জোর আছে যার, জিৎ হবেই হবে তার!” মানুষ চাইলে কত কিনা করতে পারে। হাজার শারীরিক প্রতিবন্ধকতা, সামাজিক টানাপোড়েন সবকিছু জয় করে মানুষ এগিয়ে চলেছে সভ্যতার সাথে তাল মিলিয়ে। শুধু বর্তমান যুগের নয়, কয়েক লক্ষ কোটি বছর ধরে প্রাণ সৃষ্টির আদি মুহূর্ত থেকে মানুষ তার ইচ্ছা শক্তি ,শারীরিক শক্তি ও বুদ্ধির জোরে একে একে আবিস্কার করেছে অতি আধুনিক সব যন্ত্রাংশ। এগিয়ে নিয়ে গেছে মানব সভ্যতাকে। কিন্তু তার মাঝেও আধুনিক যুগে বাস করে অনেক সময় আমাদের নানা প্রতিকূলতা পার করতে হয়। তেমনি একটি ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী একটি খাবার ডেলিভারি সংস্থার যুবকের ভিডিও শেয়ার করেছেন। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে ডেলিভারি বয়টির একটি হাত নেই। এক হাত দিয়ে সাইকেলের হ্যান্ডেল ধরে সাইকেল চালিয়ে চলেছেন খাবার পৌঁছে দেওয়ার উদ্দেশ্যে। এই ভিডিও দেখে তাকে কুর্নিশ জানাতে পিছু পা হচ্ছেন না নেটিজেনরা।

বর্তমান টেকনোলজি নির্ভরযুগে খুলে গেছে কর্মসংস্থানের বহু দিশা। ঘরে বসেই এখন পাওয়া যায় নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী থেকে খাবার কিংবা ওষুধ। এর ফলে ডেলিভারি সংস্থার হয়ে কাজ পেয়েছেন বহু বেকার যুবক যুবতী। প্রধানত তারা বাইকের সাহায্যে এই কাজ করে থাকেন। কিন্তু এমন অনেক যুবক-যুবতী আছেন যারা বাইক কেনার সামর্থ্য রাখেন না। তাদের ভরসা দুই চাকার সাইকেল। সেই সাইকেল এর উপর ভর করে তারা ঘুরে বেড়ান শহরের এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্ত। তাদের মধ্যে বেশ কিছু ডেলিভারি বয় বা গার্ল আছেন যাদের নানা ধরনের শারীরিক প্রতিবন্ধকতাও আছে। সেই প্রতিবন্ধকতাকে কাটিয়ে তারা এগিয়ে যান তাদের গ্রাহকদের সেবার উদ্দেশ্য।

ডেলিভারি বয়টি সম্বন্ধে বিশেষ কিছু জানা না গেলেও ফেসবুক ব্যবহারকারীদের থেকে জানতে পারা গেছে তিনি শিলিগুড়ির বাসিন্দা। অনেক সময় ডেলিভারি ম্যানদের প্রয়োজন হয় মোবাইল ম্যাপের। যার মাধ্যমে তারা সঠিক গন্তব্যস্থলে পৌঁছাতে পারেন। কিন্তু ভিডিওতে দেখা zomato বয়ের সাথে দেখা যায়নি কোন মোবাইল ফোন। এর থেকে প্রমাণিত কি পরিমান তিনি তার নিজস্ব কর্মস্থলটিকে আত্মস্থ করেছেন!

সোশ্যাল মিডিয়া ভাইরাল হওয়া এই ভিডিওটি দেখে কুর্নিশ জানিয়েছেন অনেকেই। বহু মানুষ ছেলেটির ভবিষ্যতের জন্য শুভকামনা করেছেন। কেউ আবার বলেছেন,” নিজের মনের উপর বিশ্বাস থাকলে সবই সম্ভব।” একজন ব্যবহারকারী আবার বলেছেন,”zomato বা এই সমস্ত ডেলিভারি সংস্থাগুলিকে ধন্যবাদ যারা বিশেষ ভাবে সক্ষম মানুষদেরও কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়েছেন।”

Related Articles

Back to top button