সপাটে থাপ্পড় খাবে! আচমকাই শুভমান গিলের কড়া সমালোচনা সেওবাগের

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ গতকাল পাঞ্জাব কিংসের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত জয় পেয়েছে গুজরাট টাইটান্স (Gujrat Titans)। এই অসাধারণ ম্যাচটি গড়িয়েছিল শেষ ওভার অবধি। ঋদ্ধিমান সাহা (Wriddhiman Saha) অত্যন্ত আগ্রাসী স্টার্ট দিয়ে গেলেও শুভমান গিল (Shubman Gill) সহ বাকি মিডল অর্ডারের ক্রিকেটাররা খুবই ধীর গতিতে ব্যাটিং করেছিলেন। ফলে পাঞ্জাবের দেওয়া ১৫৪ রানের টার্গেটও বেশ চ্যালেঞ্জিং হয়ে দাঁড়িয়েছিল। হরপ্রীত ব্রার-রা গতবারের আইপিএল চ্যাম্পিয়ন দলের ব্যাটারদের কাজটা বেশ কঠিন করে তুলেছিলেন।

শেষ ওভারে সেট ও অর্ধশতরান করা শুভমান গিলকে ৬৭ রানের ব্যক্তিগত স্কোরে ফিরিয়ে চাপ বাড়িয়ে দিয়েছিলেন গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেরা বোলার ব্রিটিশ তারকা স্যাম ক্যারান। কিন্তু শেষপর্যন্ত গুজরাট টাইটান্সের ঠান্ডা মাথার ফিনিশার রাহুল তেওয়াটিয়া ১ বল বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতিয়ে দেন নিজের দলকে। কিন্তু এরপর শুভমান গিলের সমালোচনা করেছেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনের বীরেন্দ্র সেওবাগ।

sehwag pc

আগামীকাল গিল নিজের ৬৭ রান করেছেন ৪৯ বলে খেলে। সেওবাগ এরপরে বলেছেন, “নিজের অর্থশতরান সম্পূর্ণ করতে ও ৪১-৪২ বল সময় নিয়েছিল। অর্থাৎ তার পরের ১৭ রান এসছে মাত্র ৭-৮ বলে। ও যদি রানের গতি না বাড়াতো তাহলে হয়তো সে শহরে ৭ নয়, বরং ১৫-১৬ রান তারা করতে হতো গুজরাটকে।”

তিনি আরও বলেছেন, “অর্থাৎ বোঝা যাচ্ছে যে ও সেট হয়ে যাওয়ার পর আগ্রাসী ব্যাটিং করতে সক্ষম ছিল। কিন্তু যতক্ষণ না নিজের অর্ধশতরান সম্পূর্ণ করেছে ততক্ষণ ধীরগতিতে ব্যাটিং করেছে। ক্রিকেট একটা দলগত খেলা। এখানে এমনটা করা যায় না। ক্রিকেট সময়মতো আপনার গালে একটা সপাটে থাপ্পড় মেরে বুঝিয়ে দেবে যে আপনি ভুল করেছেন। অর্ধশতরান সম্পূর্ণ করার পর ও যদি আগ্রাসী ব্যাটিং করতে গিয়ে আউট হয়েছে তো তাহলে সেই ফল ভুগতে হতো ওর দলকে।”

মাঝের ওভারগুলিতে যে তিনি নিজে ধীরগতিতে ব্যাটিং করেছেন সেটা স্বীকার করে নিয়েছেন শুভমান গিলও। তিনি বলেছেন, “মাঝের ওভারগুলিতে বল পুরোনো হয়ে যাওয়ার পরে এই পিচে রান তোলা মুশকিল ছিল তাই আমরা শুরুতে যতটা পারি আক্রমণ করেছি। হ্যাঁ একটা সময় যখন হার্দিক ভাই আউট হয়ে গিয়েছিল তখন একটু চাপে পড়ে গিয়েছিল দল। টার্গেট খুব একটা বড় ছিল না কিন্তু আপনাকে সব সময় রান নিয়ে যেতে হবে যাতে ডট বল আপনার ওপর চাপ না তৈরি করতে পারে।”