টাইমলাইনখেলাক্রিকেটIPL

১০ বছর আগে চাহালের হেনস্তার বিবরণ শুনে ক্ষোভে ফুঁসছেন সেওবাগ, জানতে চাইলেন সেই মদ্যপ ক্রিকেটারের পরিচয়

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: রাজস্থান রয়্যালসের লেগ স্পিনার যুজবেন্দ্র চাহাল সম্প্রতি একটি ভিডিওতে তার নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজি সতীর্থ রবিচন্দ্রন অশ্বিন এবং করুণ নায়ারের সাথে একটি গল্প শেয়ার করেছেন যা আপনাকে অবাক করে দেবে।

এই ভিডিওতে চাহাল বলেছেন, “সামান্য কিছু মানুষ আমার এই গল্পটি জানেন। কখনো বলিনি, কিন্তু আজ থেকে সবাই জানবে। এটা ২০১৩ সালে হয়েছিল, তখন আমি মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অংশ ছিলাম। আমাদের ম্যাচ বেঙ্গালুরুতেই ছিল, তার পর গেট-টুগেদার হল। সেখানে একজন খেলোয়াড় ছিলেন যিনি বেশ মাতাল ছিলেন। আজ তার নাম নেব না। তিনি আমাকে ডাকলেন। সে আমার দিকে অনেকক্ষণ তাকিয়ে ছিল। সেখানে পৌঁছলে আমাকে বাইরে নিয়ে গিয়ে বারান্দা থেকে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। যদিও আমার হাত তার গলায় জড়ানো ছিল।”

গল্পটি বলতে গিয়ে চাহলের যেন সেদিনের ঘটনাগুলি মনে পড়তে থাকে। তিনি আরও বলেন, “আমার হাত ফস্কালে আমি ১৫ তলা থেকে পড়ে যেতাম। সেখানে উপস্থিত অন্যান্য লোকেরা এই সব দেখার সাথে সাথে তারা এসে সবকিছু সামলে নেয়। যখন আমাকে বারান্দা থেকে বের করে আনা হয়, আমি অজ্ঞান হয়ে যাই। তারপর আমাকে জল দেওয়া হলো। সেদিন বুঝলাম বাইরে যাওয়ার সময় আমাদের কতটা দায়িত্বশীল হওয়া উচিত।”

এখন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দ্র সেওবাগও চাহালের সমর্থনে এসেছেন এবং তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় আওয়াজ তুলেছেন। বারান্দা থেকে চাহালের ঝুলন্ত কথা শুনে রেগে যান নজফগড়ের নবাব। সেওবাগ টুইট করেছেন যে এটি একটি রসিকতা নয় এবং চাহালের সেই ক্রিকেটারের নাম বলা উচিত। সেওবাগ টুইট করে বলেছেন, ‘যে খেলোয়াড় নেশাগ্রস্ত অবস্থায় চাহালের সঙ্গে এমনটা করেছে তার নাম বলা দরকার। যদি সত্য হয় তবে তা কৌতুক হিসাবে বিবেচনা করা উচিত নয়। জানা জরুরী কি ঘটেছে এবং এর গুরুত্ব বিবেচনায় কি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে? তবে কিছুক্ষণ পর তিনি মুছে দেন এই টুইট।

Related Articles