পশ্চিমবঙ্গবিধানসভা নির্বাচন

ভোট পরবর্তী হিংসা অব্যাহত, তৃণমূল পঞ্চায়েত কর্মীকে কুপিয়ে খুন বর্ধমানে

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ভোটের ফলাফল বেরোনোর পর থেকে রাজ্য জুড়ে হিংসা অব্যাহত। বিভিন্ন জেলায় আক্রান্ত হচ্ছে বিভিন্ন দলের কর্মী সমর্থকরা। পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রাম এলাকায় নৃশংস ভাবে খুন হলেন শ্রীনিবাস ঘোষ নামে বছর পঞ্চাশের এক তৃণমূল নেতা। বিজেপির দুষ্কৃতিরাই দেবুকে মেরেছে বলে তাঁর বাড়ির লোকজন অভিযোগ করেন।ইতিমধ্যেই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

সোমবার রাতে পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রাম এলাকায় সক্রিয় তৃণমূল কর্মী শ্রীনিবাস ঘোষ (৫৪) ঘরে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা লাঠিসোটা ও টাঙি নিয়ে তাঁর উপর চড়াও হয়। এমনটাই অভিযোগ পরিবারের। বেধড়ক মারধর করা হয় তাকে। পাশাপাশি তার ঘর ভাঙচুর করা হয়।  মারধর করা হয় পরিবারের লোকজনকেও।কেতুগ্রামের আগরডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের ৯ নম্বর সদস্য ছিলেন তিনি।

ঘটনার খবর পেয়ে কেতুগ্রাম থানার পুলিস ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায়। মৃত ব্যক্তিকে তুলে পোস্টমর্টেমের জন্য কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়। আহত ব্যক্তিদের ভর্তি করা হয় কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে। আহতদের একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে কাটোয়া থানার পুলিস।

তৃণমূলের অভিযোগ অস্বীকার করে কেতুগ্রামের বিজেপি নেতৃত্ব। তারা বলেন, ভোটের ফল ঘোষণার পর থেকেই তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা বিজেপির কর্মী সমর্থকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে অত্যাচার, ভাঙচুর শুরু করেছে। মালগ্রামে আমাদের কর্মীরা রবিবার রাত থেকেই গ্রামছাড়া। তাহলে আমাদের কর্মীরা কী করে হামলা করল?

Back to top button