fbpx
টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

বদলি নীতি নিয়ে এবার আন্দোলনের পথে শিক্ষক-শিক্ষিকারা, বিদ্যালয় মাদ্রাসায় দুই জায়গায় বদলি নীতি অচলাবস্থা!

 

বাংলা হান্ট ডেস্ক : নিয়োগ যখন দুরস্ত। একদিকে ট্রান্সফার প্রক্রিয়া বন্ধ। দোম আটকে যাচ্ছে একাধিক শিক্ষক মহলের। কিন্তু ভ্রুক্ষেপ নেই সরকারের। শুধু স্কুল নয় মাদ্রাসাগুলোতে ও আইনের গেরোতে আটকে রয়েছে একাধিক ট্রানস্ফার প্রক্রিয়া। মাদ্রাসা সার্ভিস এডুকেশন ফোরাম বহুদিন ধরে লড়াই করছে এই ট্রান্সফারের জন্য। তারাও দাবি নিয়ে বহুবার দ্বারস্থ হয়েছে শিক্ষা মহলের উপর অংশে। এখনো পর্যন্ত কোনো সুরাহা মেলেনি।

০১/১২/২০১৯ (রবিবার) কোচবিহার জেলার মাথাভাঙ্গা শহরে United Teachers’ Wellfare Association (UTWA) নামক একটি অরাজনৈতিক শিক্ষক সংগঠনের পক্ষ থেকে একটি সভা অনুষ্ঠিত হল। সংগঠনের মূল দাবিগুলি হল- ১) দূরত্ব ও অভিজ্ঞতা উভয়কে গুরুত্ব দিয়ে প্রতিবছর সাধারণ বদলি (স্পেশাল গ্রাউন্ড ব্যতীত) চালু করতে হবে ২) সমগ্র চাকরি জীবনে ন্যূনতম তিনবার আপস বদলি দিতে হবে । দাবিগুলো একান্তই ন্যায় সঙ্গত বলে মনে করছে শিক্ষক মহলের এক অংশ।কারণ দূরে থেকে নিজেদের পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন থেকে যারা বহুদিন হলো চাকরি করছেন তাদের সুযোগটা এতটা সীমিত করে দেওয়া হয়েছে যাতে তাদের মনে চঞ্চলতার বৃদ্ধি পাচ্ছে।


সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সুশোভন মুখার্জী বলেন “আমরা যে সমস্ত শিক্ষক-শিক্ষিকারা বাড়ি থেকে অনেক দূরে রাজ্যের প্রতিটি জেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করি, তারা বিভিন্ন পারিবারিক সমস্যার সম্মুখীন হওয়া সত্ত্বেও অধিকাংশ সময় পরিবারের পাশে দাঁড়াতে পারি না।”

দীর্ঘদিন যাবৎ সাধারণ বদলি (স্পেশাল গ্রাউন্ড ব্যতীত) বন্ধ থাকায় এবং সুবিধামতো আপোষ বদলি না পাওয়ার কারণে আমরা মানসিক, শারীরিক এবং আর্থিক সব রকম ভাবেই বিধ্বস্ত হচ্ছি যা আমাদের কর্ম জীবনে প্রভাব ফেলছে। এই পরিস্থিতিতে আমরা সংঘবদ্ধ হয়ে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী এবং মাননীয় শিক্ষামন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করার চেষ্টা করছি যাতে উনারা আমাদের দাবির বিষয়গুলি মানবিক দৃষ্টি ভঙ্গিতে বিচার করে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেন”।

Close
Close