টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গআবহাওয়া

লক্ষ্মীবারে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির ভ্রুকুটি শহরজুড়ে! দক্ষিণের একাধিক জেলায় মাঝারি বৃষ্টি, উত্তরে বাড়বে দুর্যোগ

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বহু প্রতিক্ষার পর গত শনিবার দক্ষিণবঙ্গে এসে পৌঁছেছে বর্ষা আর এর প্রভাবে বর্তমানে দক্ষিণের একাধিক প্রান্তে নেমেছে স্বস্তির বৃষ্টি। জুনের প্রথমে বর্ষা এসে পৌঁছানোর কথা থাকলেও প্রায় দুই সপ্তাহ দেরিতে পৌঁছায় তা। স্বভাবতই দীর্ঘ সময় ধরে আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তিতে ভুগতে থাকে দক্ষিণবঙ্গের মানুষেরা। তবে অবশেষে সেই গুমোট ভাব কাটিয়ে বৃষ্টির দেখা পেয়েছে শহরবাসী। আগামী দিনে বৃষ্টিপাত চলবে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। অন্যদিকে, উত্তরবঙ্গে বৃষ্টিপাত বজায় থাকলেও তার পরিমাণ অনেকাংশে কমতে পারে বলে খবর। অবশ্য কয়েকদিনের মধ্যে তা পুনরায় বাড়বে।

আবহাওয়ার খবর
সর্বোচ্চ তাপমাত্রা : ৩১.৮° সেলসিয়াস
সর্বনিম্ন তাপমাত্রা : ২৬.১° সেলসিয়াস
আর্দ্রতা : ৭৭%
বাতাস :  ১০ কিমি/ঘন্টা
মেঘে ঢাকা : ৬০%

আজকের আবহাওয়া
প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে উত্তরবঙ্গের একাধিক জেলায় প্রবল থেকে প্রবলতর বৃষ্টিপাত হলেও দক্ষিণবঙ্গের কপালে জোটেনি বৃষ্টির একটি বিন্দু-ও। পরবর্তীতে ঝড়-বৃষ্টি হলেও তার পরিমাণ ছিল অত্যন্ত অল্প। অবশেষে সকল বাধা কাটিয়ে দক্ষিণবঙ্গে এসে পৌঁছেছে দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমি বায়ু আর তার প্রভাবে বিগত বেশ কয়েক দিনে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাত হয়েছে। এমনকি, বাংলার কিছু প্রান্তে বাজ পড়ে একাধিক মানুষের মৃত্যুর খবর পর্যন্ত সামনে উঠে এসেছে। আজ কলকাতা সহ হাওড়া, হুগলি, দুই ২৪ পরগনা, মেদিনীপুর, পূর্ব বর্ধমানের একাধিক প্রান্তে ঝোড়ো হাওয়ার সাথে বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। আজ সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসের আপেক্ষিক আদ্রতার পরিমাণ ৭৭%।

উত্তর ও দক্ষিণ বঙ্গের আবহাওয়া
আগামী বেশ কয়েকদিন দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় চলবে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাত। এর প্রভাবে দক্ষিণের তাপমাত্রা অনেকাংশে কমবে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। তবে অতিভারী বৃষ্টিপাত হবে না কোনো প্রান্তেই। তবে এ বছর উত্তরবঙ্গে সময়ের আগেই বর্ষা এসে পৌঁছানোর কারণে দক্ষিনে বর্ষার প্রভাব হবে কম।

অপরদিকে, উত্তরবঙ্গের একাধিক প্রান্তে বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে প্রবল বৃষ্টিপাত হয়ে চলেছে। এমনকি বৃষ্টির পরিমাণ এতটাই বেশি ছিলো যে, বন্যা সহ ধসের সর্তকতা পর্যন্ত জারি করা হয়। বর্তমানে দুর্যোগের পরিমাণ অনেকাংশে কমেছে, তবে আগামী কয়েক দিনে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

আগামীকালের আবহাওয়া 
আগামী সময়ে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টির কারণে উধাও হয়ে যাবে গুমোট ভাব। দীর্ঘ সময় ধরে আর্দ্রতা জনিত অস্বস্তি কেটে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকবে বলে জানা গিয়েছে। কলকাতা সহ তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের সাক্ষী থাকবে মানুষ। এবছর বর্ষার প্রভাব কম হলেও আগামী কয়েকদিনে ভালো রকমের বৃষ্টিপাত হবে বলেই পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর।

Related Articles

Back to top button