টাইমলাইনভারত

৭০টির মধ্যে ৬৫ টি ভেড়াই মেরে ফেলেছে জংলি কুকুর, রাতারাতি সর্বস্বান্ত পশুপালক পরিবার

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ এখনো ভারতের (india) একটা বড় অংশের মানুষের প্রধান জীবিকা পশুপালন। ভেড়া, উট, গোরুর মত বিভিন্ন গবাদি পশু পালন ও তার থেকে তৈরি বিভিন্ন পশুজাত দ্রব্য বিক্রির মাধ্যমেই চলে তাদের রুটিরুজি। মাঝে মাঝেই এই পশুদের পালে হানা দিয়ে থাকে জংলি কুকুরেরা। ফের এমনই একটি ঘটনা ঘটল হরিয়ানায়, যার জেরে রাতারাতি সর্বস্বান্ত পশুপালক পরিবার।

হরিয়ানার পানিপথের পাথরগড় গ্রামে ঘটেছে এই ঘটনা। এখানে বাবু রামের পরিবার এবং তার ভাই ভেড়া পালন করে জীবিকা নির্বাহ করেন। তাদের পারিবারিক উপার্জনের পুরোটাই এই ভেড়া পালনের ওপর নির্ভরশীল। বাবু রাম জানিয়েছিলেন যে তাঁর ৭০ টি ভেড়া ছিল যার মধ্যে ৬৫ টি বন্য কুকুর আক্রমণ করে হত্যা করেছে। বাকি ৫ ভেড়াও আহত।

৬৫ টি ভেড়ার মৃত্যুর পরে, রাতারাতি সর্বনাশ নেমে এল পশুপালক পরিবারে। তারা নিজেদের জীবিকা নির্বাহ করার একমাত্র উপায় হারিয়ে ফেলেছে। পরিবারের মতে ৬ লাখ টাকার বেশী ক্ষতি হয়েছে এই আক্রমণে। বাবু রাম সরকারের কাছে এই পরিস্থিতিতে সাহায্যের আবেদন করেছে। ইতিমধ্যেই সেখানে পৌঁছে গিয়েছে প্রশাসন, সব কিছু পরিদর্শন করে তারা সরকারি সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, নয়ডা প্রশাসন ইতিমধ্যেই পোষা ও জংলি কুকুরদের আলাদা করার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নিতে চলেছে। সংস্থাটি জেলার সকল পোষা কুকুরের ডেটা সংগ্রহ করবে এবং সময়ে সময়ে তাদের ভ্যাকসিনগুলি শুরু করা হয়েছে তাও নিশ্চিত করবে। সংস্থা পোষা প্রাণীর একটি রেকর্ড রাখবে এবং পোষা কুকুর সম্পর্কিত সমস্ত সমস্যার উপর নজর রাখবে। এছাড়াও, এই সমস্ত বিষয় পর্যবেক্ষণের জন্য পোষা কুকুরের গলায় একটি কলার বেঁধে দেওয়া হবে, যাতে একটি চিপ সংযুক্ত করা হবে, যাতে পোষা কুকুরকে সহজে শনাক্ত করা যায়।

 

Related Articles

Back to top button