টাইমলাইনভারত

বছরের এই বিশেষ সময়ে করুন মহাদেব শিবের উপাসনা, জীবনে আসবে খুশির বাহার

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ ব্রহ্মা বিষ্ণু মহেশ্বরের মধ্যে শ্রাবণ মাসকে শিব (Shiva) ঠাকুরের মাস বলা হয়ে থাকে। এই মাসে প্রতি সোমবার মহিলারা শিব ঠাকুরের ব্রত রেখে উপোষ থেকে সংসারের মঙ্গল কামনায় শিবের মাথায় জল ঢালেন। তবে অনেকেই হয়ত জানেন না- শুধুমাত্র শ্রাবণ মাস নয়, টানা ১৬ সোমবার শিবের আরাধনা করলে মানুষের মনের সমস্ত আশা আকাঙ্খার পূর্ণতা প্রাপ্তি হয়।

পুরাণ মতে, ভগবান শিবকে তুষ্ট করতে তাঁর ঘরণী মাতা পার্বতীও তাঁর জন্য টানা ১৬ টি সোমবার ধরে তাঁর ব্রত করেছিলেন। এই বিশেষ ব্রত পালনের কিছু বিশেষ নিয়ম রয়েছে।


১) এই ১৬ টি সোমবারের ব্রতের প্রথম শর্ত হল একেবারে শুদ্ধ মনে উপোষ থেকে আপনাকে এই ব্রত পালন করতে হবে।
২) স্নান সেরে আপনাকে পুজোয় বসতে হবে। সাদা পোষাকে পুজোয় বসবেন।
৩) আপনার ঘরে যদি ভগবান শিবের মূর্তি না থাকে, তাহলে কোন সমস্যা নেই। ব্রতের নিয়ম পালনের জন্য আপনি ঠাকুর ঘরে থাকা শিব ঠাকুরের ছবিকে নিয়েও করতে পারেন।
৪) পুজোর সময় খেয়াল রাখবেন, আপনার ঠাকুর ঘরের মুখ যেন উত্তর পূর্ব দিকে থাকে। সেইসঙ্গে পূজা অর্চনার জন্য ঠাকুরের মূর্তি বা ছবিটিকে উত্তর মুখ করে রাখবেন।


৫) পুজোর সময় সোমবারের ব্রতকথা পাঠের ন্যায় ওঁ নমঃ শিবায় মন্ত্র পাঠ করতে হবে।
৬) মহাদেবের আরাধনার সময় পুজোর থালায় উপকরণ হিসাবে বেলপাতা, চাল, ফুল, ধুতরো, প্রদীপ, ধূপ, চন্দন, দুধ, কর্পূর রাখবেন।
৭) যেভাবে শ্রাবণ মাসের সোমবারগুলোতে মহাদেবের আরাধনা করেন, ঠিক সেইভাবে ১৬ সোমবারের ব্রতও করতে হবে। শ্রাবণ মাসটা করে থেমে গেলে চলবে না।

৮) সারাদিন উপোষ থেকে সকালের ন্যায় সন্ধ্যেতেও বাবার মাথায় জল ঢেলে তবেই খাদ্য গ্রহণ করবেন।
৯) উপোষ শেষে নুন বিহীন খাদ্য আহার করবেন। সেক্ষেত্রে ফল বা দুধ জাতীয় খাবার গ্রহণই শ্রেয়।
১০) পরপর টানা ১৬ টি সোমবার ধরে ভগবান শিবের ব্রত করলেই মিলবে পুণ্যফল ৷

Related Articles

Back to top button