আন্তর্জাতিকটাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গভারত

শি জিনপিং এবং টিকটককে একই খাটে তুলে শ্মশানে অন্তিম সংস্কার করল হিন্দু সংহতি

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ টিকটক (Tiktok) দেশে নিষিদ্ধ হওয়ায় বাগনানের হিন্দু সংহতি (Hindu Samhati) ভারত সরকারকে এক অভিনব ভঙ্গিতে সম্মান প্রদর্শন করল। বিভিন্ন আপত্তিকর ছবি, ভিডিও প্রকাশ করা হচ্ছে টিকটকে এই অভিযোগ তুলে এই অ্যাপ বাতিলের আর্জিও জানিয়েছিলেন তারা। তবে চীনের বিরুদ্ধে ভারতের এই যোগ্য জবাবে কার্যত অবিভূত তারাও।

ভারতে নিষিদ্ধ টিকটক
ভারত চীন সীমান্তে সীমা বিবাদ এবং তাঁর পরবর্তীতে চীনকে কিছুটা হলেও শায়েস্তা করতে মাঠে নেমেছে মোদী সরকার। ভারতে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হল ৫৯ টি চীনা অ্যাপ। যার মধ্যে রয়েছে টিকটকও ছাড়াও ইউসি নিউজ, সিএম ব্রাউজার, ফাইল শেয়ারিং পরিষেবা শেয়ারিট, শপিং অ্যাপ্লিকেশন শিন, জনপ্রিয় মোবাইল গেম ক্লাশ অফ কিংস সহ আরও বেশ কিছু অ্যাপ। মঙ্গলবার এমনকি ভারতের গুগল প্লে স্টোর থেকে সরিয়েও দেওয়া হল এই টিকটক।

অভিনব সম্মান প্রদর্শন করল হিন্দু সংহতি
এই চীনা অ্যাপ ভারতে নিষিদ্ধ ঘোষণা হওয়ার পরই স্থানীয় বাসিন্দাদের সচেতন করতে এক অভিনব উদ্যোগ গ্রহণ করল বাগনানের হিন্দু সংহতি। টিকটক সহ বেশ কয়েকটি চীনা অ্যাপের ছবি এবং সেই সঙ্গে চীনা রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং-এর ছবি, কুশপুতুল খাটিয়ায় তুলে শ্মশানে নিয়ে অন্তেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন করলেন তারা। বাগনান হিন্দু সংহতির সভাপতি নিমাই গুছাইতের নেতৃত্বে, ‘বলো হরি, হরিবোল’ বলে সম্পূর্ণ হিন্দু রীতি মেনেই শেষকৃত্য প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়।

উচ্ছ্বসিত হিন্দু সংহতির সভাপতিও
প্রতীকী অভিযান হলেও ভারত সরকাররে গৃহীত সিদ্ধান্তকে এভাবেই সাধুবাদ জানালেন তারা। এই বিষয়ে হিন্দু সংহতির সভাপতি দেবতনু ভট্টাচার্য জানালেন, ‘ভারত সরকারের গৃহিত সিদ্ধান্তের বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সচেতন করতে এই কাজ করা হয়েছে। তবে ভারত সরকার চীনকে হাতে মারার পাশাপাশি ভাতে মারাও যে পরিকল্পনা করেছেন, তাঁর জন্য সাধুবাদ জানাই’।

Back to top button