টাইমলাইনবিনোদন

‘শ্রেষ্ঠ অনুভূতি’, ছেলে ইউভানের মুখে ‘বাবা’ ডাক শুনে অভিভূত রাজ

বাংলাহান্ট ডেস্ক: আর মাত্র এক দিন বাকি ইউভানের (yuvaan) নয় মাস বয়স হতে। এই পুঁচকে বয়সেই ‘বাবা’ ডাকতে শিখে গিয়েছে সে। ছেলের মুখে বাবা ডাক শুনে আবেগপ্রবণ রাজ চক্রবর্তী (raj chakraborty)। এটাই পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ অনুভূতি বলে মনে করেন রাজ। আনন্দের এই মুহূর্ত তাই অনুরাগীদের সঙ্গে শেয়ার করে নিয়েছেন তিনি।

নিজের ইনস্টাগ্রাম হ‍্যান্ডেলে একটি মিষ্টি ভিডিও শেয়ার করেছেন রাজ। সেখানে দেখা যাচ্ছে ছেলেকে কাঁধে বসিয়ে নাচাচ্ছেন তিনি। বাবার কাঁধে চেপে খুব খুশি ইউভান। নাচতে নাচতে বাবা বাবা বলে ডাকতেও শোনা গিয়েছে সে। এদিকে ছেলের নাচের চোটে হিমশিম অবস্থা রাজের। কিন্তু ইউভানের মুখে বাবা ডাক শুনে স্পষ্টতই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছেন তিনি।


ক‍্যাপশনে রাজ লিখেছেন, ‘আমার ছেলে আমাকে ‘বাবা’ ডাকতে শিখেছে। আর প্রতিবার আমি ওকে এটা বলতে শুনলে অভিভূত হয়ে যাই। পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ অনুভূতি এটা।’ নেটিজেনরা কমেন্ট বক্সে আদরে ভালবাসায় ভরিয়ে দিয়েছে ছোট্ট ইউভানকে। হার্ট ইমোজি কমেন্ট করেছেন অভিনেত্রী সায়ন্তিকা ব‍্যানার্জি ও অভিনেতা সায়ক চক্রবর্তী।

https://www.instagram.com/p/CP9y8sGpmOa/?utm_medium=copy_link

১২ সেপ্টেম্বর শুভশ্রীর কোল জুড়ে আসে আদরের ইউভান। এক রকম বলা যায় নেটনাগরিকদের চোখের সামনেই বড় হয়ে উঠছে ইউভান। নয় মাস হতে চলল তার বয়স। আর কয়েক মাস পরেই এক বছরে পড়বে রাজ শুভশ্রীর নয়নের মণি।

দুজনেই পালা করে ছেলের ছবি, ভিডিও শেয়ার করতে থাকেন ইনস্টাগ্রামে। মাঝে অবশ‍্য নির্বাচনী প্রচারের জন‍্য বেশ কিছুদিন ইউভানের থেকে দূরে থাকতে হয়েছিল রাজকে। বাড়ি ফিরেই তাই ছেলেকে আদরে আদরে ভরিয়ে দিতে দেখা গিয়েছিল পরিচালককে।

https://www.instagram.com/p/CPQZmnopWLa/?utm_medium=copy_link

এবার ইউভানের আরো কয়েকটি মিষ্টি ছবি শেয়ার করেছেন রাজ। বাবার বাইকে চেপে ক‍্যামেরার জন‍্য পোজ দিয়েছে ছোট্ট ইউভান। পাশে দাঁড়িয়ে এক হাত দিয়ে ছেলেকে ধরে রেখেছেন রাজ। নীল জামা ও সাদা প‍্যান্ট পরে মিষ্টি লাগছে ইউভানকে‌। খুদেকে দেখে কে বলবে তার বয়স মাত্র আট মাস।

https://www.instagram.com/p/CPkESiGJFyS/?utm_medium=copy_link

ছবিগুলি শেয়ার করে রাজ লিখেছেন, ‘আমার প্রথম বাইক পালসার ১৫০। ২০০৩ সালে আমার প্রথম পারিশ্রমিক দিয়ে এই বাইকটা কিনেছিলাম, যেটা আমার ছেলে এখন চড়তে চাইছে। আমি নিশ্চিত ও যখন বড় হবে তখন এই বাইকটা চালাতে চাইবে। আমি সেই দিনের জন‍্য এটা রেখে দেব।’

Related Articles

Back to top button