টাইমলাইনখেলাক্রিকেট

রাহুল দ্রাবিড়েরই এই অবস্থার সমাধান বের করতে হবে, মন্তব্য জাহির খানের

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: শুরু হয়ে গিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম ভারত টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এই সিরিজে ভারতের অনেক তারকা ক্রিকেটার দলে অনুপস্থিত রয়েছেন ঠাসা সূচির মাঝে বিশ্রামের কারণে। দলে জায়গা পেয়েছেন এক ঝাঁক তরুণ ক্রিকেটার যাদেরকে নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীদের উৎসাহের অন্ত ছিল না। কিন্তু প্রথম দুই ম্যাচে কার্যত দক্ষিণ আফ্রিকার সামনে আত্মসমর্পণ করেছে ভারতীয় দল। রিশভ পন্থের নেতৃত্বাধীন দল একেবারেই বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারেনি। এবার ভারতীয় দলের এই করুণ পরিস্থিতি নিয়ে মুখ খুললেন প্রাক্তন তারকা ভারতীয় পেসার জাহির খান।

প্রাক্তন বাঁহাতি পেসার জানিয়েছেন যে তার দেখে মনে হয়েছে ভারতীয় দল নিজের চিরাচরিত লড়াকু মানসিকতা হারিয়ে ফেলেছে এবং এই মুহূর্তে চাপের সামনে সহজেই ভেঙে পড়ছে। তার মতে এই অবস্থা থেকে ভারতকে এখন একমাত্র দিশা দেখাতে পারেন কোচ রাহুল দ্রাবিড়। নিজের খেলোয়াড় জীবনে দ্রাবিড় এরকম অনেক পরিস্থিতির মুখোমুখি পড়েছেন। তার দেওয়া পেপ-টক ভারতীয় তরুণ ক্রিকেটারদের জন্য আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়ার মূলমন্ত্র হতে পারে।

জাহিরের কথা যে সত্যি তা দুটি ম্যাচ বিশ্লেষণ করলেই ধরা পড়ে। দুটি ম্যাচের ক্ষেত্রেই যখন দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাট করতে নেমেছে তখন ভারত শুরুর দিকে কয়েকটা উইকেট তুলে নিতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটাররা যখন পাল্টা আক্রমণ শুরু করেছেন তখন চাপের মুখে ভেঙে পড়েছে ভারতীয় বোলিং লাইন আপ। প্রথম ম্যাচে তিন উইকেট পড়ার পর ভারতীয় দল মিলার এবং রাসি ভ্যান ডার ডুসেনের জুটির সামনে ভেঙে পড়ে। দ্বিতীয় ম্যাচে ভুবনেশ্বর কুমারের দুরন্ত বোলিং সত্ত্বেও যখন হেনৃক্সেন পাল্টা আক্রমণ শুরু করেন তখন ভারতীয় বোলারদের কাছে সেই পাল্টা আক্রমণের কোন জবাব ছিল না। অধিনায়ক হিসেবে রিশভ পন্তও এমন কিছু সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি যাতে প্রোটিয়াদের রান তোলার গতি আটকানো যায়।

জাহির বলেছেন, “দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের হাতে রান কম ছিল। কিন্তু প্রথম ম্যাচে ভারত বড় রান করেছিল এবং তারপর একসময় অবধি ভারতের দখলেই ম্যাচটা ছিল। কিন্তু তারপরও ম্যাচটা জেতা যায় নি। আমার মনে হয় রাহুল দ্রাবিড়ের প্লেয়ারদের সবাইকে একসঙ্গে নিয়ে বসার সময় এসেছে। কিছু কড়া কথাবার্তাও হয়তো বলার সময় এসেছে। এই ভারতীয় দলের এটা বোঝা দরকার যে গোটা ম্যাচটা ৪০ ওভারের এবং গোটা ম্যাচে একই রকমের জয়ের মানসিকতা নিয়ে খেলতে হবে।

Related Articles

Back to top button