টাইমলাইনটাকা পয়সাভারত

কর্মীদের সন্তানদের পড়াশোনায় ৭০০ কোটি টাকা অনুদান! মানবিক সিদ্ধান্ত নিয়ে নজির গড়ল Zomato

বাংলা হান্ট ডেস্ক: সংস্থার ডেলিভারি কর্মীদের জন্য এবার বড়সড় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে চলেছে জনপ্রিয় অনলাইন ফুড ডেলিভারি সংস্থা Zomato। জানা গিয়েছে যে, এবার কর্মীদের সন্তানের উচ্চ-শিক্ষার ভার নিতে চলেছে এই সংস্থা। শুধু তাই নয়, ডেলিভারি কর্মীদের সন্তানের পড়াশোনার যাবতীয় খরচের জন্য ৭০০ কোটি টাকা অনুদানের ঘোষণাও করা হয়েছে। আর এই ঘোষণা করেছেন স্বয়ং সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা দীপেন্দর গয়াল।

এই প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন যে, ESOPs থেকে প্রাপ্ত সমস্ত আয় Zomato Future Foundation-এ দান করা হচ্ছে। পাশাপাশি, কর্মচারীদের একটি ইন্টারনাল ই-মেলের মাধ্যমে এই কথা জানিয়ে দিয়েছেন দীপেন্দর। পাশাপাশি, তিনি আরও জানান মূলত, Zomato-র IPO-র আগে তাঁকে বিনিয়োগকারী এবং কোম্পানির বোর্ডের তরফে কিছু ESOPs দেওয়া হয়। সেখান থেকেই থেকেই আয়ের একটা বড় অংশ দান করতে চলেছেন তিনি।

কি কি মিলবে সুবিধা:
মূলত, সংস্থার কর্মীদের সন্তানদের শিক্ষা বাবদ খরচের কথাকে মাথায় রেখেই একগুচ্ছ ঘোষণা করা হয়েছে। এই প্রসঙ্গে Zomato Future Foundation-এর তরফে জানানো হয়েছে যে, মোট ৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে Zomato-সঙ্গে যুক্ত থাকা ডেলিভারি কর্মীদের দুই সন্তানের শিক্ষার জন্য প্রতি বছর ৫০,০০০ টাকা করে খরচ বহন করা হবে। শুধু তাই নয়, পাশাপাশি, যে সব কর্মীরা সংস্থার সঙ্গে ১০ বছর ধরে যুক্ত থাকবেন, তাঁদের সন্তানের জন্য প্রতি বছর উচ্চশিক্ষার জন্য ১ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হবে।

এছাড়াও, কোনো ডেলিভারি কর্মীর ছেলে বা মেয়ে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় কৃতকার্য হলে, তাঁকে “প্রাইজ মানি” দেওয়ার পাশাপাশি স্নাতকস্তরে পড়াশোনার ক্ষেত্রেও উৎসাহ প্রদান করা হবে। তবে, এখানেই শেষ নয়, কোনো ডেলিভারি পার্টনারের সাথে কাজ করার সময় যদি কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা বা দুর্ঘটনা ঘটে সেক্ষেত্রে তাঁর সন্তানের পড়াশোনা ছাড়াও পরিবারের দায়িত্ব নেবে Zomato।

সেক্ষেত্রে, ওই ডেলিভারি কর্মী ওই সংস্থায় কতদিনের জন্য কাজ করছেন, বা কবে থেকে কাজ করছেন সেই বিষয়টি প্রাধান্য পাবে না। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, Zomato-র শেয়ার বর্তমানে খুব একটা সুবিধাজনক জায়গায় একেবারেই নেই। এমনকি, গত বৃহস্পতি ও শুক্রবার শেয়ার বাজারে ফের ধাক্কা খেয়েছে এই সংস্থার শেয়ার।

এমতাবস্থায়, চিন্তার ভাঁজ পড়েছে বিনিয়োগকারীদের কপালেও। এমনকি, ক্রমাগত নিম্নমুখী হওয়ার পর এক্কেবারে সর্বনিম্ন স্তরে চলে গিয়েছে এই কোম্পানির শেয়ার। এমতাবস্থায় বাজার বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন যে, এই অবস্থায় সংস্থার কোনো স্টক বিনিয়োগকারীরা কিনে থাকলে শেষ পর্যন্ত ক্ষতিরই সম্মুখীন হবেন তিনি।

Related Articles