টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গরাজনীতি

‘নতুন করে লেখা হোক দেশের ইতিহাস’, ইতিহাসবিদদের নিকট আরজি অমিত শাহের

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ভারতবর্ষের ইতিহাস কি পুনরায় একবার নিজেদের মতো করে লিখতে চাইছে কেন্দ্র সরকার? বহুদিন ধরেই এই প্রশ্ন জোরালো হয়ে উঠছে আর এবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের (Amit Shah) বক্তব্যে সেই সম্ভাবনাই আরো প্রকট হয়ে উঠলো। শাহের দাবি, “ভারতের ইতিহাস নতুন করে লেখা দরকার। আমরা যে লিখিত ইতিহাস জানি, তা কোথাও কোথাও বিকৃত করা হয়েছে। অনেক সময় তা সঠিক হয় না।”

দিল্লিতে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে ইতিহাসবিদদের উদ্দেশ্যে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ডাক, ‘নতুন করে ইতিহাস লেখা হোক।’ অসম সরকারের একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে শাহ বলেন, “আমি ইতিহাসের ছাত্র। আমাদের দেশের ইতিহাস সঠিকভাবে লেখা হয়নি কিংবা মানুষের সামনে ঠিকভাবে উপস্থাপন করা হয় না, তা অনেকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রে সেটা ঠিক। তাই সময় এসেছে, ভারতের ইতিহাসকে সংশোধন করার প্রয়োজন।”

তিনি আরো বলেন, “এখানে যত পড়ুয়া এবং ইউনিভার্সিটির অধ্যাপকেরা রয়েছেন, তাদের উদ্দেশ্যে বলবো, ইতিহাসকে সঠিকভাবে পরিবেশন করা হয়নি, এই চিন্তা থেকে বেরিয়ে নতুন করে গবেষণা শুরু করা হোক। তবেই সবকিছু সঠিক করা সম্ভব হবে।”

তবে এদিন প্রথম নয়, এর আগেও একাধিকবার অমিত শাহ নিজের বক্তব্যের মাধ্যমে বুঝিয়ে দেন, দেশের ইতিহাসকে সংশোধন করতে কেন্দ্র বদ্ধপরিকর। এক্ষেত্রে ইতিহাসকে যে নিজেদের মতো করে লিখতে মরিয়া কেন্দ্র সরকার, সে বিষয়ে অতীতে একাধিকবার মন্তব্য করে এসেছেন বিশেষজ্ঞরা। সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকটি উদাহরণ চোখে পড়েছে।

সম্প্রতি, নেতাজি ও আইএনএ মিউজিয়ামে সুভাষচন্দ্র বসুর সঙ্গে মহত্মা গান্ধীর বিরোধিতা উল্লেখ করার পাশাপাশি অন্যান্য একাধিক বিষয়ের ওপর আলোকপাত করা হয়েছে। এক্ষেত্রে একদিকে যখন কালাপানি অধ্যায় থেকে শুরু করে ব্রিটিশ আমলের একাধিক বিষয় উল্লেখিত হয়েছে, আবার অপরদিকে বিনায়ক দামোদর সাভারকরের প্রশংসায় মেতেছে মোদী সরকার।

Bharatiya janata party,central government,amit shah,narendra modi,netaji subhas chandra bose,mahatma gandhi,binayak damodar savarkar,delhi,indian history

বিশেষজ্ঞদের মতে, ভারতের ইতিহাস লেখার ক্ষেত্রে প্রথমেই নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে অবিভক্ত ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে উল্লেখ করতে চলেছে কেন্দ্র। এক্ষেত্রে জহরলাল নেহেরুর নাম সরিয়ে বিনায়ক দামোদর সাভারকরের পাশাপাশি অন্যান্য একাধিক ব্যক্তিত্বকে তুলে ধরতে চাইছে কেন্দ্র।

Related Articles