টাইমলাইনভারত

মুসলিমদের নিয়ে চরম বিতর্কিত বয়ান অন্ধ্রপ্রদেশের উপ-মুখ্যমন্ত্রীর! পরে ভুল বুঝে চাইলেন ক্ষমা

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ অন্ধ্র প্রদেশের (Andhra Pradesh) উপ মুখ্যমন্ত্রী কে নারায়ণ স্বামী (k Narayana Swamy) মুসলিমদের নিয়ে বিতর্কিত বয়ান দিলেন। উনি তাবলীগ জামাতদের (Tablighi Jamaat) কথা উল্লেখ করে বলেন, মুসলিমরা পরিস্কার ভাবে থাকে না। এর সাথে সাথে উনি জামাতের সদস্যদের উপর অভিযোগ করে বলেন, ওঁরা এদিক ওদিক পালিয়ে গোটা দেশে করোনার সংক্রমণ বাড়াচ্ছে। নারায়ণ স্বামী অভিযোগ করে বলেন যে, জামাতিরা ডাক্তারদের সাথে সহযোগিতা করছে না, আর এই কারণে রাজ্যে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে চলেছে।

শনিবার মিডিয়ার সাথে কথা বলার সময় উনি বলেন, ‘মরকজে অংশ নেওয়ার জামাতের সদস্যরা দিল্লীতে হওয়া অনুষ্ঠানে নিজেদের প্লেট পরিস্কার করত না। যাঁদের রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে, তাঁরা ডাক্তারদের সাথে সহযোগিতা করে না। ওঁরা খাওয়ার সময় চামচ আর প্লেটে কামড় বসায়, আর এর থেকেই করোনা ছড়িয়ে পড়ছে। আমি ওদের ভিডিও দেখেছি। ওঁরা সবাই আজব আজব কাণ্ড করছে। রিপোর্ট পজেটিভ আসার পরেও চারিদিকে ঘুরে বেড়াচ্ছে। যদি এরা দিল্লীর মরকজে অংশ নিত না, তাহলে আজ দেশের এই অবস্থা হত না।”

স্বামী এই বলেন যে, অন্ধ্রপ্রদেশে যদি জামাতিরা করোনা না ছড়াত, তাহলে ২০-২৫ এর বেশি আক্রান্তের সংখ্যা হত না। উনি বলেন, ‘আমি মুসলিমদের বিরুদ্ধে না। তাঁরা তাঁদের ধর্ম পালন করতেই পারে। কিন্তু তাঁরা খুব নোংরা জিনিষ করে, খাওয়ার সময় পরিস্কার রাখেনা কিছুই। ওদের এই স্বভাবের কারণে আজ ভারতে করোনাভাইরাস এতটা প্রভাব ফেলতে সক্ষম হয়েছে।”

যদিও, এরপর নারায়ণ স্বামী নিজের এই বিতর্কিত বয়ানের জন্য ক্ষমাও চান। উনি ট্যুইট করে লেখেন, ওনার ‘এই বয়ানের কারণে যদি কারোর মনে আঘাত লাগে, তাহলে আমি ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।” আপনাদের জানিয়ে দিই, এক সপ্তাহ আগে অন্ধ্রপ্রদেশে মুখ্যমন্ত্রী জগনমোহন রেড্ডি সবার কাছে আবেদন করেছিলেন যে, এই ভাইরাসকে যেন কোন ধর্মের রঙ না দেওয়া হয়।

Back to top button