পরীক্ষায় পাশ করাতেই হবে! ফেল করে হুগলির স্কুলে তুলকালাম কাণ্ড পড়ুয়া-অভিভাবকদের

বাংলাহান্ট ডেস্ক : পরীক্ষা পাশ করাতেই হবে। এমনই দাবি নিয়ে অভিভাবক ও ছাত্রীরা স্কুলের গেট আটকে তুমুল বিক্ষোভ দেখালেন। শ্রীরামপুর উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের ঘটনায় রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে এলাকাজুড়ে। গত বুধবার স্কুলে প্রায় তিন ঘন্টা ধরে তুলকালাম চলে। এরপরেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য ছুটে আসতে হয় শ্রীরামপুর থানার পুলিশকে।

ছাত্রীদের অভিযোগ মাধ্যমিকের ২৩ জন এবং উচ্চ মাধ্যমিকে ৯ জন পরীক্ষার্থী টেস্ট পরীক্ষায় পাশ করতে পারে নি। এই পরীক্ষার্থীদের টেস্টে পাশ করানোর দাবিতে স্কুলের গেটে শুরু হয় জমায়েত। প্রধান শিক্ষিকা সহ বেশ কয়েকজন শিক্ষিকা এই বিক্ষোভের ফলে স্কুলের ভেতর আটকে পড়ে যান। প্রায় তিন ঘন্টা ধরে তুমুল উত্তেজনার পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। এরপর শ্রীরামপুর থানার পুলিশ স্কুলের শিক্ষিকাদের স্কুল থেকে বার করেন।

   

দ্বাদশ শ্রেণীর এক ছাত্রী দাবি করেছেন, “প্রি-টেস্ট পরীক্ষায় ভালো নম্বর পেলেও টেস্টে কিভাবে নম্বর খারাপ হয়ে গেল? পাশ করানো হোক আমাদের। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় আমরা ভালো ফল করব। অন্যান্য স্কুলে টেস্টে পাশ করানো হয়েছে। আমাদের স্কুলে তা হয়নি। আমরা পরীক্ষার খাতা দেখতে চাইলেও দেখাচ্ছেনা।”

এক মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী বলেছেন, “অন্যান্য স্কুলে টেস্টে পাশ করানো হলেও আমাদের স্কুলে তা করানো হয়নি। আমাদের দাবি আমাদের সবাইকে পাশ করিয়ে দিতে হবে। ভালো রেজাল্ট করব আমরা মাধ্যমিক পরীক্ষায়।” এই ঘটনায় এক অভিভাবিকা জানিয়েছেন, “এই টেস্ট পরীক্ষা থাকে স্কুলের নিয়ন্ত্রণে। এখানে বোর্ডের কোন হাত থাকে না। স্কুল যদি ছাত্রীদের টেস্টে উত্তীর্ণ করিয়ে দেয় তাহলে ভালো হয়। নয়ত ওদের একটা বছর নষ্ট হবে।”

exam students wikimedia

বিষয়টি নিয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা আইভি সরকার জানিয়েছেন, “খুব খারাপ রেজাল্ট করেছে কয়েকজন ছাত্রী। কোনও পরীক্ষায় ৭ আবার কোন পরীক্ষায় ৩ নম্বর পেয়েছে তারা। আমরা খাতা দেখাতে চাই ছাত্রীদের। মিটিং করা হয়েছে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে। ছাত্রীরা যদি খাতা দেখতে চায় তাহলে তারা আগে একটি লিখিত দরখাস্ত করুক।”

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর