বাবা ছিলেন নাপিত, নিজের প্রতিভা ও পরিশ্রমে ভর করে আজ ভারতীয় দলে সুযোগ আদায় করলেন ছেলে  

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্ক: আজ থেকে শুরু হয়েছে বাংলাদেশের মাটিতে ভারত বনাম বাংলাদেশ ওডিআই সিরিজ। ঢাকার ‘শের ই বাংলা’ স্টেডিয়ামে আজ প্রথম ওডিআই ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। পরের বছর ভারতের মাটিতে আয়োজিত হতে চলা ওডিআই বিশ্বকাপের প্রস্তুতিও শুরু হচ্ছে আজ থেকেই। আজকের ভারতীয় দলে রয়েছেন এক অভিষেককারী।

   

আইপিএলের রাজস্থান রয়‍্যালসের হয়ে খেলা ২৬ বছর বয়সী মধ্যপ্রদেশের পেসার কুলদীপ সেন আজ ভারতীয় দলে নিজের অভিষেক ঘটালেন। আইপিএলে নিজের যোগ্যতার প্রমাণ আগেই দিয়েছিলেন তিনি। তারপর থেকেই ভারতীয় নির্বাচনদের নজরে ছিলেন এই পেসার।

তার ভারতের হয়ে খেলার সুযোগ পাওয়াটা একেবারেই সহজ ছিল না। মধ্যপ্রদেশের অত্যন্ত ছোট এবং প্রত্যন্ত একটি গ্রাম থেকে উঠে আসা এই ক্রিকেটার অত্যন্ত গরিব পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তার সঙ্গে বেড়ে উঠছিল তার আরো চার ভাই-বোন। আর বাবা ছিলেন একজন নাপিত। ক্ষমতা ছিল না কুলদীপকে ক্রিকেট খেলানোর।

তাও ছোটবেলা বিভিন্ন পাড়ায় টুর্নামেন্টে ক্রিকেট খেলে বেড়াতেন কুলদীপ। তেমনভাবেই একদিন নজরে পড়ে যান তার ছোটবেলার কোচ অরিল অ্যান্টনীর। তার প্রতিভা দেখে এবং তার পরিবারের অবস্থা সম্পর্কে জেনে তাকে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দিতে রাজি হন তিনি। জোগাড় করে দেন ক্রিকেটের যাবতীয় প্রয়োজনীয় সামগ্রী এবং এখান থেকেই যাত্রা শুরু হয়েছিল কুলদীপের।

এরপর ২০১৮ সালে রঞ্জি ট্রফিতে মধ্যপ্রদেশের হয়ে প্রথম সুযোগই বাজিমাত। আটটি ম্যাচ খেলে ২২ টি উইকেট নিয়েছিলেন এই তরুণ পেসার। আরো চার বছর ডোমেস্টিক ক্রিকেট খেলার পর নিজের আইপিএল কন্ট্রাক্টটি পেয়ে যান কুলদীপ। আর আজ তিনি অভিষেক করছেন ভারতের জাতীয় দলের হয়ে। কোন রূপকথার গল্পের চেয়ে কম নয় তার এই উত্থান।

 

সম্পর্কিত খবর