টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গভারতরাজনীতি

ত্রিপুরায় তৃণমূলের আনাগোনা বাড়তেই শাহি তলব, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ডাকে তড়িঘড়ি দিল্লী ছুটলেন বিপ্লব

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ ত্রিপুরায় (Tripura) দৌরাত্ম বাড়ছে তৃণমূলের। এরই মাঝে বুধবারই বিকেলেই জরুরী তলবে দিল্লী যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব (Biplab Deb)। সূত্রের খবর, বিপ্লব দেবকে তড়িঘড়ি দিল্লী ডেকেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (amit shah)। তবে ঠিক কি কারণে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীকে দিল্লী ডাকা হয়েছে, সে বিষয়ে এখনও স্পষ্ট ভাবে কিছু জানা যায়নি।

একুশের বিধানসভা নির্বাচনে অভূতপূর্ব সাফল্যের পর এবার দিল্লী জয়ের টার্গেট নিয়েছে বঙ্গ তৃণমূল। সেই মর্মেই গুটি সাজাচ্ছে সবুজ বাহিনী। কিছুদিন আগেই দিল্লী গিয়ে সরকার বিরোধী বিভিন্ন দলের নেতৃত্বদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। তবে এরই মধ্যে ত্রিপুরায় নিজেদের ক্ষমতা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এগোচ্ছে তৃণমূল।

ত্রিপুরায় গিয়ে ইতিমধ্যেই ঝামেলায় জড়িয়েছে ঘাসফুল শিবির। প্রথম দিন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ত্রিপুরায় পা রাখতেই, তাঁর গাড়িতে হওয়া হামলার ঘটনায় ত্রিপুরা সরকাররে দিকেই আঙ্গুল তুলেছিলেন তিনি।

এরপর দেবাংশু ভট্টাচার্য, সুদীপ রাহা, জয়া দত্ত-সহ অন্যান্য নেতাদের উপর আক্রমণের এবং তাঁদের গ্রেফতারের ঘটনায় সেখানে গিয়ে পুলিশ আধিকারিকের সঙ্গে বচসায়ও জড়ান অভিষেক। এসবের মধ্যে এখন ত্রিপুরা জয়ের টার্গেটে ‘জিতবে ত্রিপুরা’ শ্লোগানও বানিয়ে ফেলেছে তৃণমূল বাহিনী।

২০২৩ সালে নির্বাচন রয়েছে ত্রিপুরায়। সেই লক্ষ্যে ত্রিপুরা জয়ের সে স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে সবুজ শিবির। তা কার্যত ঠাণ্ডা করার বুদ্ধি দিতেই অমিত শাহ, বিপ্লব দেবকে দিল্লী ডেকেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, তৃণমূলকে ঘায়েল করতে, প্রচারের নয়া কৌশলের পন্থা বাতলে দিতে পারেন শাহ।

Related Articles