টাইমলাইনপশ্চিমবঙ্গ

দাবি না মানলে ধর্মঘটের পাশাপাশি বসবে অনশনেও, মাসের শেষ টানা ৩ দিন বাস ধর্মঘটের ডাক বাসমালিকদের

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ নির্বাচনের মুখে এক নতুন সমস্যা, নানাবিধ দাবিতে বাস ধর্মঘটের (bus strike) ডাক দিল বাসমালিকরা। তাদের দাবি, যে পরিমাণে ডিজেলের দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে, ভাড়া বাড়িয়েও কোন লাভ নেই- কমাতে হবে পেট্রোপণ্যের উপর ট্যাক্স, নাহলে চলবে বাস ধর্মঘট। মঙ্গলবার বৈঠক করে কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারকে তাদের দাবি জানিয়ে বাস ধর্মঘটের সিদ্ধান্ত জানালেন বাসমালিকরা।

বাস মালিকরা জানিয়েছেন, বিশ্ব বাজারে পেট্রল-ডিজেলের দাম যত বাড়ে, তেমন ট্যাক্সও বাড়ায় কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকার। দিনের পর দিন ডিজেলের দাম বেড়েই চলেছে। কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকার যদি একটু করেও তেলের উপর ট্যাক্সে ছাড় দিত, তাহলে কিছুটা হলেও তাদের সুরাহা হত। কিন্তু তাদের নিয়ে কোন হেলদোল নেই সরকারের। সামনেই নির্বাচন, তার আগে ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে গেলে তখন সরকার আর কিছুই করবে না।

তাই একাধিক ইস্যুতে আগামী ২৯, ৩০ এবং ৩১ শে জানুয়ারি মিনিবাস ধর্মঘটের ডাক দিল পাঁচটি সংগঠন। পাশাপাশি ওভারলোডিং বন্ধ, ডিজেলের দাম কমানো সহ বেশ কিছু বিষয়ে অভিযোগ জানিয়ে আগামী ২৯ শে জানুয়ারি পরিবহণ ভবন অভিযানের ডাক দিয়েছে ট্রাক সংগঠন। সেইসঙ্গে জানা গিয়েছে, আগামী ২, ৩ এবং ৪ ঠা ফেব্রুয়ারি ট্যাক্সি ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে ট্যাক্সি সংগঠন।

নির্বাচনের মুখে বাস মালিকদের এই ঘোষণায় কিছুটা চিন্তায় পড়ে গেছে সরকার। একদিকে সাধারণ মানুষের সমস্যা অন্যদিকে মাসের শেষে তিনদিন বাস ধর্মঘটের ডাক দিয়ে বাস মালিকদের দাবি, সবমিলিয়ে কিছুটা চাপে রয়েছে সরকার। ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রককে চিঠি পাঠিয়ে হুমকি দিয়েছে, আগামী ১৫ ই ফেব্রুয়ারীর মধ্যে তাদের দাবী না মেনে নিলে, তারা বৃহত্তর আন্দোলনের পথে হাঁটবে, এমনকি বসতে পারে অনশনেও।

Back to top button