‘সম্পত্তির পরিমাণ কত জানেন?’ ED-কাছে অভিষেকের সম্পদের হিসেব চাইল হাইকোর্ট

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বুধবার টানা ৯ ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে তৃণমূলের (Trinamool Congress) সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে (Abhishek Banerjee)। রাতে ইডি (Enforcement Directorate) দফতর থেকে বেরিয়ে যদিও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তিনি। এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটকে ‘মাইনাস টু’ নম্বর দিয়েছিলেন তিনি। এবার আদালতের তরফে ইডির কাছে অভিষেক-সহ লিপস অ্যান্ড বাউন্ডের সমস্ত ডিরেক্টরদের সম্পত্তির হিসেব চাইল আদালত। এদিন অমৃতা সিনহা ইডি-র উদ্দেশে বলেন, ‘যাঁদের বিরুদ্ধে তদন্ত করছেন, তাঁদের সম্পত্তির পরিমাণ কত জানেন? আপনাদের ডকুমেন্টস-এ দেখলাম কিছু নেই। এটা আমার দরকার।’

এদিন আদালতে সওয়াল জবাব চলাকালীন বিচারপতি ইডি-কে নির্দেশ দেন, লিপস অ্যান্ড বাউন্ডস-এর যাঁরা সদস্য, ডিরেক্টর, সিইও রয়েছেন, তাঁদের সবার সম্পত্তির খতিয়ান দিতে হবে। এই তদন্তে সন্দেহের তালিকায় রাখা হয়েছে এবং চলচ্চিত্র জগতের সঙ্গে যুক্ত এমন ব্যক্তিদেরও সম্পত্তির খতিয়ানও সংগ্রহ করার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি। ফলে ইডি-র আতশকাচের তলায় থাকা আরও কয়েকজনকে তলব করা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে বৃহস্পতিবার প্রথম দফায় নিয়োগ দুর্নীতি-কাণ্ডে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় বলে সূত্রের খবর। সুজয়কৃষ্ণ ভদ্র বর্তমানে জেল হেফাজতে রয়েছেন। তাঁর সম্পর্কেও জানতে চাওয়া হয়। জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় লিপস অ্যান্ড বাউন্ড (Leaps & Bounds) নিয়েও। ইডি জানায়, এই সংস্থার সিইও পদে রয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই অভিষেকের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না কেন, সেই প্রশ্নই তুলেছিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অমৃতা সিনহা। বুধবার ইডি দফতর থেকে জিজ্ঞাসাবাদের পর বেরিয়ে অভিষেক দাবি করেন, যে তিনি ওই সংস্থার সিইও পদে রয়েছেন, তবে ওই সংস্থার সঙ্গে নিয়োগ দুর্নীতির কোনও যোগ নেই। ওই সংস্থার সঙ্গে অভিষেক এবং তাঁর পরিবারের কোনও আর্থিক লেনদেন হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখতে চায় খোদ আদালত। অভিষেক, তাঁর স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়, মা লতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বাবা অমিত বন্দ্যোপাধ্যায় লিপস অ্যান্ড বাউন্ডের সঙ্গে যুক্ত।