‘জমি দিতে পারেনি রাজ্য, আর দোষ পড়ছে কেন্দ্রের উপর!’, মমতা সরকারকে আক্রমণ দিলীপের

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মেনে নিলেও, মানতে পারছেন না রাজ্য বিজেপির নেতৃত্বরা। রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতির জন্য ডিভিসির জল ছাড়কেই দায়ী করে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। তবে প্রধানমন্ত্রী মোদী এবিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগকে মেনে নিলেও, রাজ্যের বিরুদ্ধে পাল্টা তোপ দেগে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছিলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। এবার রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে সরাসরি রাজ্য সরকারকে দায়ী করলেন দিলীপ ঘোষ (dilip ghosh)।

বিজেপির রাজ্য সভাপতির দাবি, ‘কলকাতায় বন্যা হলে, সে দোষ মোদীর! উত্তরবঙ্গে বন্যা হলেও মোদীর দোষ! তাহলে গত ১০ বছর ধরে মুখ্যমন্ত্রী হয়ে মমতা ব্যানার্জী কি করেছেন? রাজ্যের এই বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী’।

   

dilip ghosh

দিলীপ ঘোষ দাবি করেছেন, বিভিন্ন সেচ প্রকল্পের জন্য কেন্দ্র থেকে টাকা এলেও, তার জন্য প্রয়োজনীয় জমি দিতে পারেনি রাজ্য সরকার। সেই কারণে কেন্দ্রের সেই টাকা আবারও ফেরত চলে গেছে। দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘রাজ্য সরকার প্রয়োজনীয় জমি দিতে না পারায়, তিস্তা প্রকল্পের ১৭০০ কোটি টাকা এবং আয়লার ৫ হাজার কোটি টাকা ফিরে গেছে। এমনকি আড়কে রয়েছে ঘাটালের মাস্টার প্ল্যানও। অন্যদিকে তারকেশ্বর-গন্ধেশ্বরী প্রকল্পে কেন্দ্র ১২০০ কোটি টাকা দিয়েও কোন কাজ করতে পারেনি রাজ্য। প্রয়োজনীয় জমি দিতে পারেনি রাজ্য, আর দোষ পড়ছে কেন্দ্রের কাঁধে’।

দিলীপ ঘোষ আরও বলেন, ‘২০১৭ সালে দামোদর বন্যা নিয়ন্ত্রণের জন্য দুটি আন্তর্জাতিক ব্যাঙ্ক থেকে দুহাজার কোটি টাকা সাহায্য করেছিল বাংলাকে। তারপর ২০২০ সালে ইন্টারন্যাশনাল ব্যাঙ্ক ফর রিকনস্ট্রাকশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইবিআরডি) ও এশিয়ান ইনফ্রাস্ট্রকচার ইনভেস্টমেন্ট ব্যাঙ্কের (এআইআইবি) পক্ষ থেকে বাংলাকে ২১৪৬ কোটি টাকা সাহায্য করা হয়। এত সাহায্য পাওয়ার পরও বন্যা হচ্ছে? সেসব টাকা গুলো গেল কোথায়?’

Avatar
Smita Hari

সম্পর্কিত খবর