বাংলায় মোটা টাকা ঢালবে আদানি, ট্রান্সপোর্টেশন ইন্ডাস্ট্রিতে আসতে চলেছে নতুন যুগ

বাংলাহান্ট ডেস্ক : রাজ্যে প্রাকৃতিক গ্যাস বন্টনের ক্ষেত্রে ইতিমধ্যেই বিনিয়োগ করেছে আদানি গোষ্ঠী। এবার গৌতম আদানির সংস্থা পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থার সাথে যৌথভাবে গড়ে তুলবে বৈদ্যুতিক গাড়ির চার্জিং স্টেশন। সূত্রের খবর, বিদ্যুৎ বন্টন সংস্থা চার্জিং স্টেশন গড়ে তোলার জন্য যে দরপত্র ডেকেছিল তার অধিক ক্ষেত্রেই যোগ্যতা অর্জন করেছে আদানির টোট্যাল এনার্জিস।  

পরিবেশ দূষণ ঠেকাতে ও জ্বালানির খরচ কমাতে কেন্দ্রীয় সরকার জোর দিচ্ছে বৈদ্যুতিক গাড়ির উপর। সেই পথে এগোচ্ছে রাজ্যও। বন্টন সংস্থা সেই উদ্দেশ্যে এর আগে দুদফায় মোট ১০৪টি চার্জিং স্টেশন গড়ার বরাত দিয়েছিল। বিদ্যুৎ সংবহন সংস্থা ও পর্যটন বিভাগের অধীন পথসাথির খালি জমিতে তৈরি করা হবে এই চার্জিং স্টেশনগুলি।

   

আরোও পড়ুন : সুখবর! মাঝ নভেম্বরেই ফের সস্তা গ্যাস সিলিন্ডার, পকেটে চাপ কমল আমজনতার, কত হল দাম? 

এরপর বন্টন সংস্থা তৃতীয় দফায় বিভিন্ন পুরসভায় পুর ও নগরোন্নয়ন দফতরের কিছু জমি চিহ্নিত করে। এই জমিগুলিতে ১৩২টি চার্জিং স্টেশন তৈরির দরপত্র ডাকা হয়। এই দরপত্রে সারা দিয়েছিল বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা। জানা গেছে এর মধ্যে অধিকাংশ বরাতে সাড়া দিয়েছে টোট্যাল এনার্জিস। আদানি গোষ্ঠী ফরাসি সংস্থা টোট্যাল এনার্জিসের সাথে যৌথভাবে এই সংস্থা তৈরি করেছে। 

gautam adani sad

সূত্রের খবর, দুর্গাপুর ও হলদিয়া অঞ্চলে চার্জিং স্টেশন করার জন্য সবথেকে বেশি সাড়া মিলেছে। এছাড়াও তালিকায় আছে নিউটাউন, হাওড়া, বজবজ, ঘাটাল, শালবনী, কাটোয়া, কাঁচরাপাড়া, আসানসোল, চন্দ্রকোণা, রিষড়া, চালসা, ইসলামপুর, ইটাহার, বনগাঁ, গাইঘাটাও। প্রসঙ্গত ইতিমধ্যেই আদানি গোষ্ঠী বর্ধমানে গাড়ি (সিএনজি) এবং রান্না ও শিল্পের (পিএনজি) জ্বালানি ব্যবসায় লগ্নি করেছে ইন্ডিয়ান অয়েলের সাথে গাঁড়ছাড়া বেঁধে।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর