টাইমলাইনভারত

লাভ ম্যারেজের পর ধর্মপরিবর্তন করতে রাজি হয়নি স্ত্রী, গলা কেটে দেহ ঝোপে ফেলে দিলো স্বামী

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ উত্তর প্রদেশের সোনভদ্র জেলার চৌপন থানা এলাকার প্রীত নগরে গত ২১ সেপ্টেম্বর ঝোপ থেকে উদ্ধার হওয়া যুবতীর গলা কাটা দেহ মামলায় পুলিশ বড়সড় খোলসা করল। মৃতার পরিচয় চৌপন থানার বাসিন্দা প্রিয়া সোনি নামে হয়েছে। পুলিশ প্রিয়া সোনির গলা কাটা দেহ উদ্ধার করেছিল। পুলিশ অনুযায়ী, প্রিয়া দেড় মাস আগে পরিবারের সহমতি ছাড়া প্রতিবেশী যুবক এজাজ আহমেদের সাথে বিয়ে করেছিল।

পুলিশ জানায়, এজাজ প্রিয়াকে ধর্ম পরিবর্তন করার জন্য চাপ দিচ্ছিল। কিন্তু প্রিয়া ধর্ম পরিবর্তন করার জন্য রাজি হয়নি। আর এই কারণে দুজনের মধ্যে অনেক ঝগড়াও হয়েছে। এরপর এজাজ তাঁর বন্ধুর সাথে মিলে তাঁর স্ত্রী প্রিয়ার গলা কেটে হত্যা করে তাঁর দেহ ঝোপে ফেলে দেয়।

প্রসঙ্গত, চৌপন থালা এলাকায় ২১ সেপ্টেম্বর এক যুবতীর গলা কাটা দেহ উদ্ধার হয়। পুলিশ এই বিষয়ে ৩০২ ধারা অনুযায়ী মামলা দায়ের করেছিল এবং যুবতীকে সনাক্ত করার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিযান শুরু করেছিল।

সোশ্যাল মিডিয়া থেকে প্রিয়ার পরিবার তাঁর মেয়েকে চিনতে পারে। প্রিয়ার পরিজনেরা পুলিশকে জানায় যে, গত ৭ জুলাই সে পরিবারের অমতে এজাজ আহমেদের সাথে কোর্ট ম্যারেজ করেছিল। এরপর পুলিশ এজাজকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ চালালে, পুলিশ প্রিয়ার কাটা মাথাও উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, এজাজ লাগাতার প্রিয়ার উপর ধর্ম পরিবর্তন করার জন্য চাপ সৃষ্টি করছিল, প্রিয়া রাজি না হওয়ায় তাঁর এই পরিণতি হয়।

সোনভদ্রের এসপি আশিস শ্রীবাস্তব জানান, প্রিয়ার ধর্মপরিবর্তন না করা হলে এজাজের পরিবার তাকে স্বীকার করবে না বলে জানিয়ে দিয়েছিল। তাঁরা দুজনে দেড় মাস ধরে একটি লজে ছিল। প্রিয়া ধর্ম পরিবর্তনে রাজি না হওয়ার গত ১৭ ই সেপ্টেম্বর এজাজ তাঁর বন্ধু শোয়েব আখতারের সাথে মিলে তাঁর গলা কেটে নৃশংস ভাবে হত্যা করে।

Related Articles

Back to top button