fbpx
টাইমলাইনভারত

ড্রাগন না শুধরালে দক্ষিণ চীন সাগরে অভিযানে নামবে ভারত

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বাস্তবিক নিয়ন্ত্রণ রেখায় (Lac) যদি চীনের কুকীর্তি বন্ধ না হয়, তাহলে ভারত (India) দক্ষিণ চীন সাগরে (South China Sea) মুখর ভূমিকা পালন করবে। দক্ষিণ চীন সাগরে নিজেদের ভূমিকা নির্ধারণের জন্য ভারত LAC তে চীনের বর্তমান মনোভাব কি সেটা জানার অপেক্ষায় রয়েছে। আরেকদিকে, আমেরিকা চাইছে যে, এই ইস্যুতে ভারত সরাসরি তাদের পাশে দাঁড়াক। চীনকে চারিদিক থেকে ঘেরার জন্য আমেরিকার প্রচেষ্টা হল ভারত, ব্রিটেন, জাপান, অস্ট্রেলিয়ার মতো সমস্ত দেশকে এক মঞ্চে আনা।

উচ্চপদস্থ সুত্র অনুযায়ী, LAC তে চলা উত্তেজনার মধ্যে আমেরিকা চাইছে যে, ভারত দক্ষিণ চীন সাগর মামলায় তাদের রণনীতির অংশ হোক। ভারত সমেত কিছু দেশ সংযুক্ত রুপে এই এলাকায় নজরদারি চালায়। এই বিতর্কে ভারত এখনো পর্যন্ত পরোক্ষ ভূমিকা পালন করে এসেছে। এখনো পর্যন্ত ভারত সরাসরি চীনকে নিয়ে কোন বয়ান দেয়নি। যদিও বর্তমান পরিস্থিতি দেখে বিচার করা হচ্ছে যে, ভারত এই ইস্যুতে মুখ্য ভূমিকা পালন করবে কি না। LAC তে চীন যদি নিজেদের আক্রমণাত্বক মনোভাব পালন করতে থাকে, তাহলে ভারতও তাদের যোগ্য জবাব দিতে দক্ষিণ চীন সাগরে অভিযান চালাবে।

উল্লেখ্য, দক্ষিণ চীন সাগরে এখনো পর্যন্ত আমেরিকা প্রধান ভূমিকা পালন করে আসছে। ভারত এই ইস্যুতে এখনো পর্যন্ত পরোক্ষ ভাবেই চীনের মোকাবিলা করে আসছে। ওই এলাকায় চীনের প্রভাব কমাতে আমেরিকার নৌসেনা ড্রাগনকে কড়া চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছে। শুধুমাত্র ব্রিটেনই ওই এলাকায় একবার আমেরিকার সাথে সংযুক্ত রুপে নজরদারি চালিয়েছিল। এবার আমেরিকা চাইছে যে, ভারত এই ইস্যুতে সামনে এসে তাদের সাথে অভিযান চালাক।

LAC তে চীনের মনোভাব আচমকাই নরম হয়েছে। সুত্র অনুযায়ী জানা যাচ্ছে যে, এই মামলায় ভারত দক্ষিণ চীন সাগরে মুখ্য ভূমিকা পালন করতে পারে দেখেই চীনের সুর নরম হয়েছে। চীন জানে যে, ভারত যদি এই ইস্যুতে প্রধান ভূমিকা পালন করে তাহলে তাদের প্রতিদ্বন্দ্বি আমেরিকার হাত ব্যাপক ভাবে মজবুত হবে। এরপর ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, জাপান, অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশগুলো এই ইস্যুতে আমেরিকার সাথে দাঁড়াতে পারে। আর এই কারণেই LAC তে আক্রমণাত্বক মনোভাব পালন করা চীন আচমকাই সুর নরম করে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে।

Back to top button
Close