এটা AC কোচ না বাথরুম? যাত্রীর শেয়ার করা ছবি নিয়ে শোরগোল! কী বলছে রেল?

বাংলা হান্ট ডেস্ক : টিকটিকি, ইঁদুর-আরশোলা (Cockroach) থেকে মাছি, বিষাক্ত মাকড়সা বা ট্যারান্টুলা–কী নেই সেখানে! নাহ্, এটা কোন চিড়িয়াখানার কথা বলছিনা আমরা। কারণ এইসব কীট-পতঙ্গের গোপন আস্তানা এখন দূরপাল্লার ট্রেনের (Indian Railways) কামরা। জেনারেল কামরার পর এবার ট্রেনের এসি কোচেও (AC Coach) হানা দিয়েছে এই প্রাণীগুলি।

সম্প্রতি দিল্লি-ত্রিপুরাগামী এক্সপ্রেসের কামরায় আরশোলার আনাগোনা রাতের ঘুম কেড়েছে দূরপাল্লার ট্রেন যাত্রীদের। যাত্রীদের দাবি, এত বেশি টাকা খরচ করে এসি কোচের টিকিট কেটেও ইঁদুর-আরশোলার উপদ্রব থেকে মুক্তি মেলে না। বিষক্ত সব কীট-পতঙ্গকে ঘুরে বেড়াতে দেখা যায় এদিক সেদিক। মনে কাজ করে কামড় খাওয়ার অজানা আতঙ্ক।

   

সম্প্রতি এরই একটি লাইভ উদাহরণ তুলে ধরেছেন আতিফ আলী (@AatifAli2003) নামক এক টুইটার ইউজার। তিনি তার সাম্প্রতিক সফরের এক চিত্র টুইটারে তুলে ধরেছেন যা দেখে রীতিমত অবাক সবাই। ভাইরাল এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, রেলের কামরায় আরশোলা। আর তাও আবার একটা দুটো নয়, বরং একগুচ্ছ। তিনি ছবির ক্যাপশনে কোচ নম্বর থেকে শুরু করে যাবতীয় ডিটেইলস-ও দিয়েছেন। সাথে প্রশ্ন তুলেছেন যে, স্বাস্থ্যবিধি কোথায়?

যদিও এটা প্রথম নয়, এর আগেও বহুবার রেলের কামরায় আরশোলা, টিকটিকির মত প্রাণীদের ঘোরাফেরা নিয়ে আওয়াজ তুলেছেন সাধারণ মানুষ। এর আগে সাল ২০১৮ তে হাওড়াগামী কন্যাকুমারী এক্সপ্রেসের কামরায় বিষাক্ত মাকড়শার কামড়ে মৃত্যুও হয় পিন্টু সাউ নামে এক ব্যক্তির। তাই যাত্রীদের এহেন আতঙ্ক যে নেহাতই অমূলক নয় তা বলাই বাহুল্য।

ac3

একথা অস্বীকার করার কোনো জায়গা নেই যে, যাত্রীসুবিধার্থে একাধিক নতুন নতুন প্রকল্প নিয়ে আসে ভারতীয় রেল। খাবার দাবার থেকে শুরু করে টয়লেট সমস্ত জিনিসেই উন্নতি সাধন হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে এই ঘটনা রেলপ্রেমীদের জন্যেও হতাশাজনক। ভাইরাল এই পোস্টে সেই দুঃখের কথা ব্যক্ত করেছেন অনেক মানুষই। এক ইউজার তো লিখেই দিয়েছেন যে, বিষয়টি অত্যন্ত লজ্জার।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর