দুর্নীতির টাকা রুশ মডেল ‘বান্ধবী’র কাছে পাচার! ED-নজরে রাজ্যের অত্যন্ত ‘প্রভাবশালী’ নেতা

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ গত বছর থেকে বঙ্গে হাজারো প্রকার দুর্নীতির (Scam) রমরমা। কয়লা পাচার, গরু, পাচার থেকে শুরু করে স্কুল, পুরসভায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে নিয়োগে দুর্নীতির অভিযোগে সরগরম রাজ্য। আর অবশ্যই রাজনীতি। তবে এই দুর্নীতির দৌড় কী শুধু রাজ্যেই? আজ্ঞে না। এবার ইডি (Enforcement Directorates) সূত্রে উঠে এল আরও মারাত্মক অভিযোগ। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার দাবি, দুর্নীতির টাকা হাওয়ালার মাধ্যমে এ রাজ্যের ‘প্রভাবশালী’ নেতার (Influential Leader) কাছ থেকে পৌঁছেছে তার রুশ ‘বান্ধবী’র (Russian girlfriend) কাছে।

কী জানা যাচ্ছে? ইডি সূত্রে খবর, সাবেক সোভিয়েট ইউনিয়নের এক দেশে জন্ম হলেও এখন রাশিয়ার নাগরিক ওই ‘বান্ধবী’। যিনি আবার পেশায় ‘মডেল’। লন্ডনের বাসিন্দা। এই রমণীর কাছেই দুর্নীতির টাকা হাওয়ালা মারফত পৌঁছে গিয়েছে তার প্রভাবশালী বন্ধুর থেকে।

   

তদন্তকারী সংস্থা জানতে পেরেছে, হাওয়ালার মাধ্যমে প্রথমে পাঠানো হয়েছে পশ্চিম এশিয়ার এক দেশে। তারপর ওই দেশে কয়েকটি ভুয়ো সংস্থা বানিয়ে তাতেই বিনিয়োগ করা হয়েছে কোটি কোটি টাকা। খোলা হয়েছে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট। তদন্তে নেমে সেইসব অ্যাকাউন্ট ঘেঁটেই রুশ মডেলের খোঁজ পায় ইডি। গোয়েন্দাদের দাবি, ওই মডেলের অ্যাকাউন্টেও জমা পড়েছে ওই টাকা।

গোয়েন্দা সূত্রে দাবি, ২০১৮ থেকে ২০২০, এই সময়ের মধ্যে ওই প্রভাবশালী নেতা, এক হিসাবরক্ষক এবং কয়লা পাচার মামলায় অভিযুক্ত ও পলাতক বিনয় মিশ্র বহুবার বিদেশ গিয়েছেন। যার মধ্যে দুবাই, লন্ডন এবং আমেরিকায় বহুবার যাতায়াত হয়েছে। তদন্তকারীদের ধারণা সেই সময়ই ওই মহিলার সঙ্গে তাদের ‘বন্ধুত্ব’ হয়।

ed raid

ইতিমধ্যেই রুশ মহিলাকে নির্দিষ্ট ভাবে চিহ্নিত করা গেছে এবং তার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের লেনদেনের বিষয়ে খোঁজ চলছে বলে ইডি সূত্রে খবর। ‘প্রভাবশালী’র সঙ্গে ওই মডেলের এখনও নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে বলেও খবর। শুধু তাই নয়, ইডি সূত্রের দাবি, শুধু ওই মহিলা নন, তার সহযোগী কয়েক জনের কাছেও দুর্নীতির টাকা ঘুর পথে পৌঁছেছে। তদন্তকারীদের ধারণা সেই টাকার পরিমান ছুঁতে পারে একশো কোটির গন্ডি।

Sharmi Dhar
Sharmi Dhar

শর্মি ধর, বাংলা হান্ট এর রাজনৈতিক কনটেন্ট রাইটার। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর। বিগত ৩ বছর ধরে সাংবাদিকতা পেশার সঙ্গে যুক্ত ।

সম্পর্কিত খবর